বিয়ানীবাজার পৌরশহরের অস্থায়ী মাছ বাজার নিয়ে দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান হচ্ছে না। দুই পক্ষই ‘পজেটিভ’ থাকার পরও সমস্যার সমাধান না হওয়া সাধারণ মানুষের জন্য উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। মৎস্য ব্যবসায়ীদের প্রতিপক্ষ পৌর মেয়র না রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সেটাই এখন দেখার বিষয়।

গেল সপ্তাহে ব্যবসায়ীরা ঢাকা গিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর সাথে এ নিয়ে আলোচনা করেছেন। শিক্ষামন্ত্রীর দপ্তরের মৎস্য ব্যবসায়ী নেতারা আলোচনায় সন্তুষ্ট হয়েছেনে বলে জানা গেছে। মন্ত্রী মৎস্য ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনায় থাকা অবস্থায় দ্রুত সময়ের মধ্যে বিষয়টি সুরাহা করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়েছেন।

মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে দায়িত্বশীলরা মৎস্য ব্যবসায়ীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন। দীর্ঘ আলোচনায় উভয়পক্ষই পজেটিভ বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা। তবে এ বৈঠক থেকে এক সপ্তাহের সময় নিয়েছেন মাছ ব্যবসায়ীরা। তারা এই সময়ের মধ্যে পুনরায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সাথেও আলোচনা করবেন। মন্ত্রীর সহযোগিতায় একটি স্থায়ী সমাধান চান মৎস্য ব্যবসায়ীরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বৈঠকে মৎস্য ব্যবসায়ীদের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন আরফত আলী, নিজাম উদ্দিন, মঈন উদ্দিন, মারুফ আহমদ ও জিলা মিয়া। সাথে সাথে আলোচনা করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান, নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া, সহসভাপতি আব্দুল আহাদ কলা, শিক্ষামন্ত্রীর প্রতিনিধি দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সামসুল ইসলাম প্রমুখ।

বৈঠকে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে জানিয়ে মৎস্য ব্যবসায়ী জিলা মিয়া বলেন, আমরা ১০ দিনের সময় নিয়েছি। এর মধ্যে বিয়ানীবাজারের অভিভাবক শিক্ষামন্ত্রীর সাথে আমরা কথা বলবো। তাঁর সহযোগিতা ও পরামর্শ নিয়ে দায়িত্বশীলদের চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবো।

বৈঠকে অংশ নেয়া মৎস্য ব্যবসায়ীদের এক প্রতিনিধি বলেন, আমরা সহজ ও সরল পথে চলতে চাই। কেউ রাজনীতি করে আমাদের ব্যবহার করার সুযোগ তৈরীর করার চেষ্টা করলে ভুল করবে। একই সাথে সুন্দর কথায় বুলে আমরা নিজেরদের বিপদে ফেলতে রাজি নই। সুন্দর কথার সাথে মনকেও সুন্দর করলে দ্রুত সমাধান হয়ে যাবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান বলেন, অস্থায়ী বাজার নিয়ে সবার সমস্যা হচ্ছে- এটা বৈঠকের সবাই একমত হয়েছি। মৎস্য ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিসহ আমরা সমাধানের বিষয়ে পজেটিভ। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে বিষয়টি সমাধান হয়ে যাবে। তারা আমাদের কাছ থেকে এক সপ্তাহের সময় নিয়েছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা শিক্ষামন্ত্রীর সাথে ঢাকায় দেখা করেছেন। আজ মন্ত্রী বিয়ানীবাজারে আসতেছেন। সময় সুযোগ করে শিক্ষামন্ত্রীর সাথেও ব্যবসায়ীরা দেখা করে এ নিয়ে কথা বলবেন।