গত ২৭ অক্টোবর সভাপতি পদ থেকে জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউ পদত্যাগের পর থেকেই চলছে গুঞ্জন। কে হচ্ছে বার্সার সভাপতি? তবে সব গুঞ্জনের অবসান ঘটিয়ে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন হুয়ান লাপোর্তা। ভিক্তর ফন্ত ও তনি ফ্রেইসাকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয়বারের মতো সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি।

রোববার (০৭ মার্চ) ১২ ঘণ্টা ধরে ভোট দিয়ে নতুন প্রধান ও বোর্ড বেছে নিয়েছেন কাতালান ক্লাবটির ৫০.৪২ শতাংশ ভোটার। লিওনেল মেসি, সার্জিও বুসকেটস, জর্দি আলবাসহ অনেক খেলোয়াড়রাও এতে অংশ নিয়েছেন।

মোট ভোট পড়েছে ৫১ হাজার ৯৮৩টি। ২০০৩ থেকে ২০১০ পর্যন্ত বার্সেলোনার সভাপতি দায়িত্ব পালন করা কাতালান আইনজীবী ও রাজনীতিক লাপোর্তা পেয়েছেন ৩০ হাজার ১৮৪টি বা ৫৪.২৮ শতাংশ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফন্ত পেয়েছেন ১৬ হাজার ৬৭৯টি বা ২৯.৯৯ শতাংশ ভোট। আরেক প্রার্থী ফ্রেইসা পেয়েছেন ৪ হাজার ৭৬৯টি বা ৮.৫৮ শতাংশ ভোট।

যথাযথ দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায়ে প্রবল চাপের মুখে গত অক্টোবরে সভাপতির পদ ছাড়েন জোজেপ মারিয়া বার্তোমেউ। ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পান কার্লেস তুসকেতস।

বার্তোমেউয়ের বিদায়ের পর গত ২৪ জানুয়ারি নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। তবে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জন্য তা পিছিয়ে ৭ মার্চ নেওয়া হয়।

বড় কঠিন সময়ে দায়িত্ব নিলেন লাপোর্তা। এই মৌসুম শেষেই শেষ হবে মেসির সঙ্গে ক্লাবের চুক্তি। গত মৌসুমে দল ছাড়তে চাওয়া আর্জেন্টাইন তারকা আগেই জানান, নতুন সভাপতির সঙ্গে কথা বলে নেবেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। মেসির ভোট দেওয়াকে অনেকে ইতিবাচক ইঙ্গিত হিসেবে দেখছেন।

ভোটের দিন লাপোর্তা জানান, নির্বাচিত হলে রাতেই মেসির বাবা ও এজেন্ট হোর্হে মেসির সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। তার কাছে অগ্রাধিকার পাচ্ছে দলটির ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়ের সঙ্গে নতুন চুক্তি।

এর আগে নির্বাচনী প্রচারণায় লাপোর্তা বলেছিলেন, তিনি নির্বাচিত না হলে বার্সেলোনা ছাড়বেন মেসি। মেসির সঙ্গে ভালো সম্পর্ক দাবি করে লাপোর্তা বলেন, ‘ক্লাবের পরিস্থিতি বিচার করেই তাকে আমরা (চুক্তি নবায়নের) প্রস্তাব দেব। তার সঙ্গে সম্পর্ক ভালো, আমরা একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমরা হয়তো টাকা-পয়সার ক্ষেত্রে লড়তে পারব না কিন্তু মেসি তো টাকার কাঙাল নয়। সম্ভাব্য সর্বোচ্চ জায়গায় থেকেই সে নিজের ক্যারিয়ারের ইতি টানতে চায়।’

বর্তমানে লা লিগার দলটির অর্থনৈতিক অবস্থা ভীষণ নাজুক হয়ে পড়েছে। লাপোর্তার জন্য আরেকটি বড় চ্যালেঞ্জ বার্সেলোনার আর্থিক পরিস্থিতির উন্নতি। করোনা মহামারির মধ্যে লা লিগার দলটির অর্থনৈতিক অবস্থা ভীষণ নাজুক হয়ে পড়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

মাথিউরা ইউনিয়নের রায়বাসীর নাগরিকদের সাথে চেয়ারম্যান প্রার্থী আলমগীর হোসেন রুনু'র মতবিনিময়