শৈত্যপ্রবাহ এবং ঠাণ্ডা বাতাসের দাপটে তীব্র শীত জেঁকে ধরেছে সবাইকে। হিম হিম ঠাণ্ডা আর কুয়াশায় নাকাল জনজীবন। শীতের এই তীব্রতায় বেশি কাবু করে সমাজের নিন্মআয়ের মানুষকে। শীতার্ত অসহায় ও দুস্থ মানুষের উষ্ণতা দিতে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে পাশে দাঁড়ালো গোলাপগঞ্জের বাদেপাশার আরিফুল আহাদ স্মৃতি ফাউন্ডেশন। স্থানীয় এলাকার প্রায় চার শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেছে দাতব্য এই ফাঊণ্ডেশনটি। বিতরণকৃত কম্বল পেয়ে হাসি ফুটেছে শীতার্ত অসহায় ও দুস্থ মানুষদের মুখে।

শনিবার সকালে বাদেপাশা গ্রামের সামাজিক সংগঠন শেখ নিদাই সমাজকল্যাণ সংস্থার সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত শিতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা হাফিজ খসরুজ্জামান।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা পরিষদ সদস্য এডভোকেট মুজিবুর রহমান এবং বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উত্তর বাদেপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ। এসময় তারা শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে সুবিধাবঞ্চিতদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসায় আরিফুল আহাদ স্মৃতি ফাউন্ডেশনের দায়িত্বশীলদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সম্পাদক এম এ আশিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল ইসলাম সুবেদ।

শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আরিফুল আহাদ স্মৃতি ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা হাবিবুল ইসলাম, সহ সভাপতি মুছলেবুর রহমান, কুশিয়ারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ রজিউল্লাহ, এসআই কামরুল ইসলাম, তরুণ সমাজসেবক রাশেদ আহমদ, আব্দুর রহমান, জামাল আহমদ, আব্দুল মুকিত, নাহিদ আহমদসহ আর অনেকে।

উল্লেখ্য, শুধুমাত্র শীতবস্ত্র বিতরণই নয়, প্রতিষ্ঠার পর থেকেই প্রত্যন্ত এলাকা হিসেবে পরিচিত বাদেপাশার সুবিধাবঞ্চিত মানুষের আর্ত্মসামাজিক উন্নয়নে ব্যাপকভাবে ভূমিকা রাখছে আরিফুল আহাদ স্মৃতি ফাউন্ডেশন। সম্প্রতি এই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে একটি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে। প্রতি মাসের দ্বিতীয় এবং শেষ শনিবার এই মেডিকেল ক্যাম্পে রোগী দেখেন বিষেশজ্ঞ চিকিৎসকরা। আগামীতে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বাদেপাশা এলাকায় একটি স্থায়ী মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছেন বলে জানান ফাউন্ডেশনের দায়িত্বশীলরা।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বাদেপাশায় শীতার্তদের পাশে দাঁড়ালো আরিফুল আহাদ স্মৃতি ফাউন্ডেশন