বিয়ানীবাজারে শিক্ষার্থী বলাৎকার মামলায় কারান্তরিণ মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক হাফিজ আব্দুর রহিমের জমিন আবেদন না মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার সিলেট জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক বজলুর রহমান শুনানি শেষে বিকেলে এ আদেশ দেন।

আসামী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট একেএম শামিউল আলম জামিনের আবেদন করে শুনানি করেন।

শুনানিকালে বাদী পক্ষের আইনজীবী হিসেবে এডভোকেট উবায়দুল হক মজুমদার ও এডভোকেট কাজী কাবুল হাসান আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, বিয়ানীবাজার পৌরসভার ফতেহপুরস্থ হযরত হায়দর শাহ (রহ.) হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রধান হাফিজ আব্দুর রহিমের বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থী বলাৎকারসহ নির্যাতনের অভিযোগ করেন। ওই শিক্ষার্থীর পিতা বিয়ানীবাজার বিজিবি-৫২ সদর দপ্তরের সদস্য ঘটনাটি নিয়ে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির কাছে বিচারপ্রার্থী হলেও কোন সুরাহা হয়নি।

এরপর গত ১৫ সেপ্টেম্বর ওই শিক্ষার্থীর পিতা বিয়ানীবাজার বিজিবি-৫২ ব্যাটলিয়নের সদস্য বলাৎকারের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। পরদিন অভিযুক্ত হাফিজ আব্দুর রহিমকে পুলিশ আদালতে হাজির করে। এসময় তার পক্ষে আদালতে আইনজীবী জামিন প্রার্থনা করলে আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ওইদিন ভিকটিমকেও পুলিশ জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য আদালতে হাজির করে। পরে বিকেলে ফৌজদারী কার্যবিধির ২২ ধারায় ভিকটিম শিক্ষার্থী আদালতে জবানবন্দি দিলে আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

অভিযুক্ত হাফিজ আব্দুর রহিম পৌরসভার কসবা এলাকার বাসিন্দা। তিনি হায়দর শাহ (রহ.) হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে রয়েছেন।

বিয়ানীবাজারে থেকে ৮ মামলার আসামী চোর ও ডাকাত দলের সদস্য আটক, ১টি অটোরিক্সা উদ্ধার