ভারতের আইপিএল-এ অংশগ্রহণকারী দলগুলোর খেলা নিয়ে এতদিন সিলেটে জুয়া খেলা হলেও এবার পাকিস্তানের সুপার লীগের ম্যাচগুলো নিয়ে সিলেটে প্রতিদিন বসে বড় বড় জুয়ার আসর।

এমন আসর থেকে ১৫ জুয়াড়িকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার মোমিনখলায় ঝটিকা অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে।

সিলেট মহানগর পুলিশের (এসএমপি) মিডিয়া শাখা জানায়, রোববার রাতে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার মোমিনখলা এলাকার আমিন মিয়ার কলোনির থেকে নেক্সার মিয়ার দোকানে টেলিভিশনে চলা পাকিস্তান সুপার লিগের করাচি কিংস বনাম লাহোর কালান্দার্স-এর টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট ম্যাচ ঘিরে জুয়া খেলায় মত্ত ছিলেন ১৫ জুয়াড়ি।

খবর পেয়ে রাত ১০টার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানার একদল পুলিশ ঝটিকা অভিযান চালিয়ে রুবেল আহমদ (২৬), সোহাগ শেখ (৩৯), মো. আলমঙ্গীর (৩৫), রফিক আহমদ (২৭), মো. আবুল হাসান (২৪), মো. ইমাম হোসেন (২০), রিপন মালাকার (২৯), জামাল মিয়া (৩০), কবির আহমদ (৩০), জগলু আহমদ জুয়েল (৩২), রুবেল আহমদ (২৪), শাহজাহান মিয়া (২৮), মিসবাউর রহমান (৩০), আলমঙ্গীর আহমদ (২০), ও লিমন আহমদ (২৬)।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন দক্ষিণ সুরমার থানার এসআই স্নেহাশীষ পৈত্য, এএসআই মো. মোখলেছুর রহমান, এএসআই মো. শামীম, এএসআই আপন মিয়া, কনস্টেবল আবুল কালাম, নাহিদ, জিয়া ও শফিক মিয়া।

পুলিশ জানায়, নেক্সার মিয়ার দোকানে পাকিস্তান সুপার লিগের বিভিন্ন ম্যাচ ঘিরে বড় বড় জুয়ার আসর বসে। এসব জুয়ার আসরে ম্যাচ চলাকালীন টাকার বিনিময়ে খেলার ফলাফল ও বলপ্রতি ছয়-চার এবং উইকেট পতনের আগাম ঘোষণা দিয়ে ন্যুনতম ২০ থেকে ১শ টাকা পর্যন্ত বাজি ধরা হয়। যা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা (নং-১) দায়েরপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

নানা সীমাবদ্ধতায়ও বারইগ্রাম জামিয়া ইসলামিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসার সন্তুষ্টজনক ফলাফল