সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে দেশে আসা প্রবাসীদের ফেরত আসতে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। অনেকে টিকেট কিনেও যেতে পারছেন না কাংঙ্খিত গন্তব্যে, বিমানবন্দর থেকেই অনেকে ফেরত আসতে হচ্ছে।

মার্চ থেকে মধ্যপ্রাচ্যের সব দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের নিয়মিত ফ্লাইট বন্ধ ছিল। আরব আমিরাতে কর্মরত বাংলাদেশি যারা ছুটিতে এসে আটকা পড়েছেন চলতি মাসেই তাদের প্রবেশের সুযোগ উন্মুক্ত করে দেশটি। পুনঃপ্রবেশের জন্য তাদের নাগরিকত্ব ও পরিচয়পত্র প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত লিংকে অনলাইনে আবেদনের পর যারা অনুমোদন পাচ্ছেন শুধু তারাই ফেরত যেতে পারবেন। অথচ অনুমোদনের পর অনেক কষ্টে টিকিট যোগাড় করলেও যাত্রার আগে দেশটির অভিবাসন বিভাগ অনেকের বোর্ডিং অনুমোদন করছে না। ফলে প্রতিটি ফ্লাইটে ২৫ থেকে ৩০ জনের যাত্রা বাতিল হচ্ছে।

সাধারণত সংযুক্ত আরব আমিরাতে ফেরত আসতে হলে সকল ভিসাধারী প্রবাসীদের আরব আমিরাতের সরকার অনুমিত ওয়েবসাইট থেকে ফিরত আসার আবেদন করতে হয়। আবেদন করার পর আবেদন গ্রহণ হয়েছে বলে তাৎক্ষনিক একটা ফিরতি মেসেজে জানানো হয় এবং সেখানে উল্লেখ করা থাকে- ‘যদি আপনার আবেদন গ্রহণ করা হয়, সেক্ষেত্র আপনাকে পুনরায় আরকটা ইমেইলের মাধ্যমে কনফার্মেশন বার্তা জানানো হবে।’ কিন্তু অনেকে কনফার্মেশন মেসেজ আসার আগেই আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে বলে যে ইমেইল আসে সেই ইমেইলের প্রিন্ট দিয়ে টিকেট কিনে গন্তব্যের জন্য বিমানবন্দর যাচ্ছেন কিন্তু কনফার্মেশন কাগজ না থাকার কারণে বিমানবন্দর থেকে ফেরত যেতে হচ্ছে তাদেরকে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজারের দুবাগে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ