বছরখানেক পুর্বে বিয়ানীবাজার উপজেলার তিলপারা ইউনিয়নের কয়েকজন তরুণের হাত ধরে ‘স্পন্দন’ নামে একটি মানবিক সংগঠনিক যাত্রা শুরু করে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এ সংগঠনটি তিলপারা ইউনিয়নের অস্বচ্ছল পরিবারগুলোর পাশে দাড়ানোর পাশাপাশি আর্তসামাজিক ও আর্তমানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। যেন স্পন্দনের সদস্যরা চেষ্টা করছে অসহায় ও দুঃস্থদের মুখে হাসি ফোটাতে। তবে এই সংগঠনটি বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রমের সন্তুষ্টি ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিলপারা ইউনিয়নবাসী।

করোনাকালীন দুর্যোগ চলাকালেও বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে মানবিক সংগঠন স্পন্দন। এরমধ্যে সম্প্রতি এই সংগঠনটি নতুন একটি কর্মসূচি হাতে নিয়ে বাস্তবায়ন করেছেন।

সেই কর্মসূচির আওতায় ইউনিয়নের ১৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সুবিধাবঞ্চিত ১৩০ ছাত্র-ছাত্রীকে পোশাক, শিক্ষা উপকরণ ও সুরক্ষাসামগ্রী প্রদান করেছে সংগঠনটি। এর মধ্যে রয়েছে- টি-শার্ট, স্কার্ফ, খাতা-কলম, মাস্কসহ বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা উপকরণ।

পৃথকভাবে ইউনিয়নের সবকটি বিদ্যালয়ের ১০জন অসহায় সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদেরকে পোশাক, শিক্ষা উপকরণ ও সুরক্ষাসামগ্রী বিতরণ করে ‘স্পন্দন’। পৃথক এসব বিতরণ সংগঠনের দায়িত্বশীলদের সাথে কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন বিদ্যালয়গুলোর পরিচালনা পর্ষদ, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবকবৃন্দ।

‘স্পন্দন’র সপ্তাহব্যাপী এই কার্যক্রমে নেতৃত্ব দেন সংগঠনের উপদেষ্টা ডা. আব্দুস সালাম মুক্তা ও আমিনুল হক। এতে সহায়তা করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মুহিবুর রহমান স্বপন, তানভির আহমদ ও সাহাব উদ্দিন, সদস্য কামিল আহমদ, ইমরান আহমদ ও আব্দুল্লাহ আল নোমান।

সংগঠনের উপদেষ্টা ডা. আব্দুস সালাম মুক্তা বলেন, আমাদের সংগঠনের মাধ্যমে আমরা প্রায়ই সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের পাশে দাড়ানো, মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও পড়ালেখায় সহায়তা প্রদান, অসহায় ও দুঃস্থদের সহায়তা প্রদান, বাল্যবিবাহ রোধ ছাড়াও সামাজিক অনেক কাজ করার চেষ্টা করে থাকি। যাতে একটু হলেও আমাদের দেশ উন্নতির পথে আগাবে। এসময় তিনি স্থানীয় এলাকার বিত্তবান ও প্রবাসীদেরকে তাদের এই কার্যক্রমের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

এবি টিভিতে সংবাদ প্রচার : নতুন করে নির্মাণ করা হচ্ছে বিয়ানীবাজারের সেই কালভার্ট