মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার সাগরনাল ইউনিয়নে‌র পাতিলাসাঙ্গন এলাকায় সুপারী চুরির কৈফিয়ত চাওয়ায় বাবাসহ দুই মেয়েকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (৩০ অক্টোবর) ভোরে এ ঘটনাটি ঘটে। আহতরা হলেন- পাতিলাসাঙ্গন গ্রামের চনু মিয়া (৫৫), আয়শা বেগম (১৮), রাশেদা বেগম (১৬)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শরফ উদ্দিন।

পাতিলাসাঙ্গন গ্রামের শাহরিয়ার মাহবুব জানান, আজ ভোর ফজরের পর চুনু মিয়া দেখতে পান কয়েস মিয়া গাছ থেকে সুপারী চুরি করছে । তখন চুনু মিয়া তাকে ধরতে আসলে সে দা জাতীয় কিছু দিয়ে তাকে আঘাত করে। তা দেখে চুনু মিয়ার দুই মেয়ে ঘটনাস্থলে আসলে কয়েস মিয়াকে থামাতে চান। তখন সে পালিয়ে যাওয়ার জন্য তার ২ মেয়েকেও আঘাত করে। এক পর্যায়ে অভিযুক্ত কয়েস মিয়ার ভাই শামীম আহমদ এসে দা জাতীয় কিছু দিয়ে হাতে, মাথায় ও পেটে আঘাত করে।

খবর পেয়ে স্থানীয়রা বাবা ও দুই মেয়েকে জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তাররা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কুপিয়ে আহত করার অভিযোগে একই গ্রামের আব্দুল হাসিমের ছেলে কয়েস মিয়া (৪০) ও তার ভাই শামীম আহমদের (৩৫) বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে।

জুড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন, এ বিষয়ে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। পরিবারের লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মসজিদের শহর বিয়ানীবাজার।। পর্ব# ২৩ ।। এ পর্বে রয়েছে উজানঢাকী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও পাঞ্জেগানা