বিশ্বের বুকে মাতৃভাষা প্রতিষ্ঠার দাবিতে জীবন দেওয়ার নজির এক মাত্র বাঙ্গালী জাতির। বাংলাভাষা প্রতিষ্ঠার এ দাবিতে রক্তের বিনিময়ে অর্জিত ২১ ফেব্রুয়ারি যা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। আর সেই সাথে বিশ্বের বুকে স্থান করে নিয়েছে ভাষা ও ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার প্রতীক শহীদ মিনার।তবুও প্রতিনিয়ত চলেছে শহীদ মিনার অবমাননা। কোথাও কোথাও আড়ালে ঢাকা পড়েছে বাঙ্গালী জাতির এমন গর্বের প্রতীক শহীদ মিনার।

এমনইভাবে শহীদ মিনার অবমাননার ঘটনা ঘটেছে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ প্রাঙ্গনে অবস্থিত শহীদ মিনারে। ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের দিনে (রোববার) সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দেখা গেছে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে উঠে গুচ্ছ গুচ্ছ হয়ে বসে আড্ডা দিচ্ছেন কয়েকজন তরুণী। তাদেরকে দেখে মনে হয়েছে তারা এটাকে শহীদ মিনার নয় বরং অবসরে বসে থাকার জন্য কলেজ ক্যাম্পাসের ভেতরে একটি স্থাপত্য মনে করছেন।

এই প্রতিবেদক এসব শিক্ষার্থীদেরকে বারবার সতর্ক করে দেয়ার পর যে সেই অবস্থা। সার্বিক অবস্থাদৃষ্ঠে যেন মনে হচ্ছে দিন দিন যেন একুশ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মৃত্যু হচ্ছে। যদিও শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষায় হাইকোর্টও সরকারকে নির্দেশনা রয়েছে।

জুতা পায়ে আড্ডা দেওয়ার সময় তাদের কাছে এর কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা জানতামই না যে এটা কোন শহীদ মিনার। তাছাড়া সবাই দেখতাম জুতা পায়ে নিয়েই উপরে উঠে বসে থাকতো। আমরাও ভেবেছি এখানে বসে থাকা যায়। আরও কয়েকজন শিক্ষার্থীর কাছে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে উঠার কারণ জানতে চাইলে তাড়াহুড়োর মধ্যে খেয়াল ছিল না বলে জানায় তারা।

এদিকে, ওইদিন কলেজে আসা অনেক শিক্ষার্থীদের সচেতন অভিভাবক ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবি, উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কাছে এ ধরনের আচরণ মানানসই নয়।  শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলদের উদাসীনতা প্রশ্নবিদ্ধ। দায়িত্বশীলরা এ ব্যর্থতার দায় কোনোভাবেই এড়াতে পারবেন না।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. তারিকুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা ফোন শারীরিক অসুস্থতার জন্য তার মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

মোল্লাপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে গ্রামের ঐক্যের প্রার্থী হিসেবে সেলিম আহমদকে ঘোষণা