অধিবেশন বর্জন না করে সংসদে জাতীয় পার্টি ‘গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় নতুন মাত্রা এনেছে’ বলে দাবি জানিয়েছেন জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় হুইপ সেলিম উদ্দিন।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় হুইপ সেলিম উদ্দিন এবং বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত এ কে এ মোমেনের সম্মানে যুক্তরাষ্ট্রে মুলধারা রাজনৈতিক ও তরুণ কমিউনিটি সংগঠক এবং স্থানীয় কমিউনিটি বোর্ড মেম্বার খকরুল ইসলাম দেলোয়ারের আয়োজনে এক সুধী সমাশে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এ দাবি জানান।

স্থানীয় সময় বুধবার রাতে নিউ ইয়র্ক সিটির কুইন্সে আলী বাবা রেস্টুরেন্টের টাউন হলে প্রবীণ রাজনীতিবিদ বিয়ানীবাজার উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালিক লালুর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সেলিম উদ্দিন বলেন, “গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় নয়ামাত্রা এনেছে জাতীয় পার্টি। কারণ,তারা বিরোধীদলে থেকে একদিনও অধিবেশন বর্জন করেনি কিংবা জাতীয় সংসদ অধিবেশনে অনুপস্থিত থেকেও মাসের পর মাস বেতন-ভাতা নেননি।”

সিলেট-৫ আসনের জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য সেলিম বলেন, “১৯৯১ সালের পর থেকে সবকটি সংসদেই বিরোধী দলের লাগাতার অনুপস্থিতির ঘটনা ঘটেছে। বর্তমান দশম সংসদে এর ব্যতিক্রম। জাতীয় পার্টি কখনোই অধিবেশন বর্জনে বিশ্বাসী নয়। কারণ, জাতীয় পার্টির এমপিরা তার নির্বাচনী এলাকার মানুষের কল্যাণের জন্যে সংসদে এসেছেন।”

সাবেক রাষ্ট্রদূত মোমেন বলেন, “রাষ্ট্র পরিচালনায় সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন শেখ হাসিনা। তার দক্ষতাপূর্ণ নেতৃত্বের সর্বশেষ স্বীকৃতি হচ্ছে লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়ার ঘটনা এবং এটি বিশ্ববিবেককেও নাড়া দিয়েছে। সর্বত্র প্রশংসিত হচ্ছে।”

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা লাবলু আনসার, সেক্রেটারি শহিদুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক রিজু মোহাম্মদ, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রানা ফেরদৌস চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ মো. আলী, খান’স টিউটোরিয়ালের প্রেসিডেন্ট নাঈমা খান।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ফোবানার সাবেক সদস্য সচিব বেদারুল ইসলাম বাবলা, কম্যুনিটি নেতা আব্দুল কাদের চৌধুরী শাহীন, ওসমান গণি, মিসেস মনসুর, ফখরুল চৌধুরী, ইসমাইল স্বপন, সদরুন নূর, আকতার আলী, একলিমুজ্জামান নুনু, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এম এ বাতেন, জাতীয় পার্টির নেতা জসীমউদ্দিন চৌধুরী, আব্দুর রহমান, আলতাফ হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা মনিরুল ইসলাম, সরাফ সরকার, রেজাউল করিম চৌধুরী, শেখ আকতারুল ইসলাম, ঐক্য পরিষদের নেতা টমাস দুলু রায় ও লেখক-গবেষক মোস্তফা সেলিম।