জকিগঞ্জ প্রতিনিধি। ১২ মার্চ ২০১৭।

জকিগঞ্জ-সিলেট সড়ক র্দীঘদিন থেকে সড়কের বেহাল দশা। সংস্কারের দাবিতে আজ থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

সড়ক সংস্কারের দাবিতে একাধিকবার শ্রমিক-মালিক সমিতি ধর্মঘটের ডাক দিলেও জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ও দ্রুত সড়ক সংস্কারের আশ্বাস পেয়ে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়। জেলা প্রশাসনের আশ্বাসের কোন বাস্তবায়ন না হওয়ায় রবিবার থেকে আবারও শ্রমিকরা সড়ক সংস্কারের দাবিতে পরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছেন।

রবিবার সকাল থেকে দূরপাল্লার কোন যানবাহন জকিগঞ্জ ছেড়ে যায়নি। শিক্ষক, শিক্ষার্থী, চাকুরীজীবী, ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ ঘন্টার পর ঘন্টা সড়কে দাঁড়িয়ে থাকলেও গন্তব্যে যেতে পারেননি কেউই। ধর্মঘট সফল করতে সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্নস্থানে শ্রমিকরা অবস্থান করতে দেখা গেছে। চলাচলে চরম কষ্ট পোহালেও সড়ক সংস্কারের কথা চিন্তা করে পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটে সমর্থন জানিয়েছেন জকিগঞ্জ যাত্রী কল্যাণ পরিষদসহ সর্বস্থরের জনগন।

প্রায় ২ বছর হতে জকিগঞ্জ উপজেলা থেকে জেলা শহর পর্যন্ত ৯১ কিলোমিটার সড়ক যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী। প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রয়োজনের তাগিদে লোকজন চলাচল করছেন। পুরো সড়কটি ছোট বড় খানাখন্দে এক মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।  এ সড়ক ব্যবহার করছে জকিগঞ্জ  শুল্ক স্টেশন ও বিয়ানীবাজার শেওলা স্থল বন্দর ব্যবহারকারি মালামাল বোঝাই যানগুলো। সগকের বেহাল দশার কারণে দুইটি বন্দরে মালামাল বহন করতে অনীহা প্রকাশ করছেন চালক ও মালীকরা। ফলে বিপাকে পড়েছেন বন্দর ব্যবহারকারিরা ব্যবসায়ীরা।

বিশেষ করে সড়ক ও জনপথের অধিনে চারখাই থেকে আটগ্রাম-কালীগঞ্জ-জকিগঞ্জ এবং স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধিনে জকিগঞ্জ বাজার থেকে আটগ্রাম পর্যন্ত সড়ক পথ চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ভাঙ্গা সড়কে জন দূর্ভোগ চরম মাত্রায় পৌছেছে। দুর্ভোগের কারণে মানুষ খুব বেশী প্রয়োজন ছাড়া এ সড়ক দিয়ে কোথাও যেতে বের হন না।

জকিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী খলিল উদ্দিন বলেন, এ সড়ক নিয়ে তাঁরা প্রতিদিন সাধারণ মানুষের গালমন্দ শুনছেন। বিশেষ করে পৌরসভার ভেতরে জকিগঞ্জ বাজারের রাস্তার অবস্থা খুবই নাজুক। পৌর এলাকার ভিতরের সড়কের সংস্কার কাজের টেন্ডার হয়েছে কিন্তু সওজ কর্মকর্তারা ওর্য়াক অর্ডার দিচ্ছেন না। ওর্য়াকঅর্ডারের জন্য তাদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা সফটওয়্যার নষ্ট হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে। কিন্তু সফটওয়্যার নষ্ট হওয়ার অজুহাতকে তিনি রহস্যজনক বলে মনে করছেন।