জকিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০৮ মার্চ ২০১৭।

জকিগঞ্জের চালিয়াকাপন গ্রামে  স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় বসা সালিশ বৈঠকে স্বামী ছাদ উদ্দিন প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় ছাদ উদ্দিন (৩৫)জকিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে- ছাদ উদ্দিনের স্ত্রীকে একই গ্রামের মৃত কুটু মিয়ার ছেলে আব্দুল মজিদ উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় একটি বিচার বৈঠক বসে। বৈঠকে প্রতিপক্ষের কুটু মিয়ার ছেলে আব্দুল মজিদ ও তার ছেলে স্বপন আহমদের নেতৃত্বে একদল যুবক ছাদ উদ্দিনকে সালিশ বিচার চলাকালে হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করেছে। মামলার অভিযোগকারী ছাদ উদ্দিন জানান, কিছুদিন থেকে আমার স্ত্রীকে আব্দুল মজিদ উত্যাক্ত করে আসছিলো।

এ ঘটনায় আব্দুস সুবহানের বাড়িতে রবিবার সালিশ বৈঠক বসলে গ্রাম্য সালিশ আব্দুস সুবহান, আব্দুল কাইয়ুম, আব্দুর রউফ, চেরাগ আলী, মোস্তকিম আলীর উপস্থিতিতে প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো চাকু দিয়ে আমার উপর হামলা করে আমাকে গুরুতর আহত করেছে। ছাদ উদ্দিন এ ঘটনার বিচার দাবী করে পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বিচার বৈঠকে হামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ইউপি সদস্য জুনেদ আহমদ বলেন, বিচার বৈঠকে প্রতিপক্ষের লোকজন ছাদ উদ্দিনকে মারধর করেছে। ইউপি চেয়ারম্যান মাহতাব আহমদ চৌধুরী বলেন, আমি বিষয়টি নিয়ে প্রথমে বিচার বৈঠক করেছি। কিন্তু কোন সুরাহা হয়নি। পরে আবার গ্রাম্য সালিশ হয়েছে। বৈঠকে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি।

সাবেক পৌর কাউন্সিলর নারী নেত্রী জোসনা বেগম এ ঘটনার বিচার দাবী করে বলেন, একজন মহিলাকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনাটির বিচার দাবী করায় তার স্বামীকে মারধর করার ঘটনাটি দুঃখজনক। তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

জকিগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মারধরের কিছু অভিযোগ পেয়েছি।