জকিগঞ্জ উপজেলার কামালপুর (ক) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে গত বুধবার বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে মানববন্ধন করেন। পাশাপাশি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ওইদিনই বিদ্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

অভিযোগ উঠেছে, উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের মৃত আব্দুস শুকুরের পুত্র জয়নাল হক কৌশলে বিদ্যালয়ের ৭৮ শতক জায়গা দখলের চেষ্টা করছেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মাহবুব মিছবাহ বলেন, কামালপুর (ক) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৭৩ সালে ১ একর ১৯ শতক ভূমির উপর স্থাপিত হয়। সরকার ২০০০ সালে একটি ফ্লাড সেন্টার কাম স্কুল বিল্ডিংয়ের জন্য একটি ভবন তৈরি করেছে। পূর্বের একটি টিনশেড বিল্ডিংয়ের সাথে নতুন ভবনটিতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ার কার্যক্রম কোনোভাবে চালিয়ে আসছে। ২০০৩ সালের বিএস মাঠ জরিপের সময় ও সেটেলমেন্ট কর্তৃপক্ষ পর্চায় বিদ্যালয়ের নামে এক একর ১৯ শতক ভূমি রেকর্ড প্রদান করে। ২০১৩ সালে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অন্ধকারে রেখে কোনো ধরনের নোটিশ প্রদান না করে ৩০ ধারার রায় দেখিয়ে জরিপ কর্তৃপক্ষ একই গ্রামের জয়নাল হক গংদেরকে সরকারি বিদ্যালয়ের জমির বড় অংশটির রেকর্ড প্রদান করে। বর্তমানে জয়নাল দলবল নিয়ে বার বার বিদ্যালয়ের ভূমির দখল নিতে চেষ্টা করছেন। স্কুল ম্যানেজিং কমিটি, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা জমি অপদখলের চেষ্টা প্রতিহত করে যাচ্ছেন। এ ছাড়া বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক আহমদ বাদি হয়ে আদালতে একটি স্বত্ব মামলা দায়ের করেন। সিলেটের জেলা যুগ্ম জজ প্রথম আদালতে স্বত্ব মোকাদ্দমাটি বিচারাধীন রয়েছে। স্থানীয় তহশিল অফিস সরেজমিন পরিদর্শন করে সম্প্রতি জকিগঞ্জের সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কাছে একটি প্রতিবেদনে রেকর্ডপত্র ও দখল অনুযায়ী উক্ত ভূমি বিদ্যালয়ের বলে উল্লেখ করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক আহমদ, সাবেক ইউপি সদস্য ডা. নুরুল হক, হাফিজ মজুমদার বিদ্যানিকেতনের সহকারী প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশীদ স্বপন, বিশিষ্ট মুরুব্বি তুতিউর রহমান, মৌলানা আব্দুল খালিক, ফয়জুল হক, আব্দুল মালিক, ইসলাম উদ্দিন, আব্দুস সালাম, মকরম আলী, তজই মিয়া, রইয়ব আলী ও মাওলানা সিরাজুল হক।