জকিগঞ্জের একটি মসজিদে ইমাম রাখা না রাখাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই পক্ষের ১২জন আহত হয়েছেন।। অাজ শুক্রবার বারঠাকুরী ইউনিয়নে উত্তরবাগ নোয়াগ্রাম জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজুল ইসলাম জানান, গ্রামের জমির উদ্দিনের পক্ষের লোকজন মসজিদের ইমাম এনামুল হককে বিদায় দিলে মাহতাব উদ্দিনের লোকজন ইমামকে রাখার পক্ষ নেয়। এ নিয়ে শুক্রবার জুমার নামাজের পর উভয় পক্ষের সংঘর্ষে অাহত হন ছায়াদ উদ্দিন (৩৫), তছির অাহমদ, জমির উদ্দিন, নাসির উদ্দিন। মাহতাব উদ্দিনের পক্ষের মাহতাব উদ্দিন, তার ভাই শফিকুর রহমান, অাকদ্দস অালী, ছেলে সুহেল অাহমদ, মো: মুন্না কামরু্ল অাহমদ, মেয়ে অালফা বেগম, নিপা বেগম।

খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে, মাহতাব উদ্দিনের ছেলে মুন্না কয়েক বছর অাগে বিয়ে করা স্ত্রীকে দেনমোহর দিয়ে তালাক দেন। কিছুদিন অাগে তিনি ঐ মহিলাকে পুনরায় বিয়ে করেন। বিয়ের অনুষ্ঠানে দোয়া করেন মসজিদের ইমাম এনামুল হক। এর পর থেকেই উভয় পক্ষ বিরোধে জড়িয়ে যায় ইমামকে রাখা না রাখা নিয়ে। বিষয়টি জকিগঞ্জ থানা পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। গুরুতর অাহত ছায়াদ উদ্দিনসহ কয়েকজনকে সিলেটে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তথ্যসূত্র- জকিগঞ্জ নিউজ২৪।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার স্থাপন করলো বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ