জকিগঞ্জের ছয়ঘরি গ্রামে এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় পুলিশ এ পর্যন্ত ৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। উদ্ধার করা হয়েছে লুণ্ঠিত আড়াই ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকা, ২টি মোবাইল সেটসহ বিভিন্ন মালামাল।

সর্বশেষ মঙ্গলবার (২২ জুন) রাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এ মামলার আরেক অভিযুক্ত একাধিক ডাকাতি ও মাদক মামলার আসামি জাহেদ আহমদ ওরফে জিহাদ উদ্দিনকে (২৮)। গ্রেপ্তারকৃত জাহেদ আহমদ ওরফে জিহাদ উদ্দিন সুলতানপুর ইউনিয়নের ঘেছুয়া গ্রামের মৃত আজমল আলীর ছেলে। তার কাছ থেকে লুণ্ঠিত মোবাইল সেট উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, জাহেদ আহমদ ওরফে জিহাদ উদ্দিন বিরুদ্ধে এসএমপি’র কোতোয়ালী, জালালাবাদ, জকিগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার থানায় মোট ৬টি ডাকাতি ও মাদকের মামলা রয়েছে।

এর আগে এ ডাকাতির ঘটনায় পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে লুণ্ঠিত স্বর্ণালঙ্কারসহ ৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল। তাদের কাছ থেকে আড়াই ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকা, ২টি মোবাইল সেটসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করা হয়। পরে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে প্রেরণ করা করা হলে সেখানে তাদের দেওয়া ১৬৪ ধারার জবানবন্দিতে জাহেদের নাম উঠে আসে।

জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল কাসেম জানান, জকিগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসাইনের প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ডাকাতির সঙ্গে জড়িতদের আটক ও মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

জকিগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্র জানায়, গত ৪ জুন সুলতানপুর ইউনিয়নের ছয়ঘরি গ্রামে এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পরদিন এ ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে জকিগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সুমন চন্দ্র সরকার অভিযান চালিয়ে এ পর্যন্ত মোট ৮ জনকে গ্রেপ্তার ও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করেছেন।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিনা খরচে পড়ালেখা করার সুযোগ রয়েছে বিয়ানীবাজারের যে স্কুলে