একজন বর্তমান মেয়র। আরেকজন সাবেক। দু’জনই আওয়ামী লীগের নেতা। এবারের পৌরসভা নির্বাচনেও এই দুজন দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন। তবে দুজনকেই বঞ্চিত থাকতে হয়েছে। সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকিট মিলেনি বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল ও সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু।

রাবেল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন আর পাপলু উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক। এই দুজনের বদলে গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন নতুন মুখ গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহেল আহমদ।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল গত উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচিত হওয়ায় তাকে এবারের মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। আর সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু দুই বার নৌকা প্রতিক পেয়ে পরাজিত হওয়ায় তাকেও এবার নৌকার টিকেট পাননি।

এদের ছাড়াও এবারের নির্বাচনে আরও ৩ জন আওয়ামী লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। তারা হলেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী রিংকু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি, পৌর কাউন্সিলর রুহিন আহমদ খান, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা মাজেদ শরীফ চৌধুরী। তারা দলীয় সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে নির্বাচন না করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

তবে বর্তমান মেয়র আমিনুল রাবেল ও সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানিয়েছেন।

আর আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. রুহেল আহমদ জানান, আমার উপর আস্থায় রাখায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সহ সকল নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। আমি আশাকরি সকল নৌকা প্রত্যাশী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে নৌকার পক্ষে কাজ করবে। ইনশাল্লাহ সকল দলীয় নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় ও জনগণের ভালবাসায় গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় নৌকাকে বিজয়ি করে প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেব।

গোলাপগঞ্জ পৌরসভার বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল বলেন, আমি বর্তমান মেয়র হিসেবে পৌরসভার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নির্বাচন করবো।

এদিকে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলুর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে ফোন কেটে দেন।

জানা যায়, ২০১৫ সালে পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সিরাজুল জব্বার চৌধুরী বিজয়ী হন।

২০১৮সালের ৩১মে সিরাজুল জব্বার চৌধুরী মৃত্যুবরণ করলে ১১ জুলাই মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। পরে একই বছরের ৩অক্টোবর উপ-নির্বাচনে জয়লাভ করেন আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল।

উল্লেখ্য, গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজার চাহিদা অর্ধেক বই এখনও আসেনি