গোলাপগঞ্জে রুহেলা জাহান সুমাইয়ার হত্যার প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন এবং সিলেট-কানাইঘাট সড়ক প্রায় অর্ধ ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে বাঘা ইউনিয়নের প্রায় ৮/১০টি গ্রামের সর্বস্তরের মানুষ।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় বাঘা পরগনাবাজার সংলগ্ন অদিরের দোকান নামক স্থানে কাপ্তাই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও বদরুল আলম আজমলের পরিচালনায় এ মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন রুহেলা চাচাত ভাই মাহবুবুর রহমান, এলাকার প্রবীণ মুরব্বি সাবেক ইউপি সদস্য আবউল সেলিম, উপজেলা স্বেচছাসেবকদলের আহ্বায়ক হাজী আবুল কালাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি গাজী মো. সিরাজুল ইসলাম ছুরুকী, জাবেদুল ইসলাম দিদার। উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ছানা মিয়া, আরজমন্দ আলী, আব্দুল মালিক, আনওয়ার হোসেন, মুজিবুর রহমানসহ সোনাপুর, দৌলতপুর, কান্দিগাও, কালাকোনা, এখলাছপুর, তুরুগাও ও উত্তরগাও এলাকার সর্বস্তরের জনগণ। মানববন্ধন চলাকালীন সময় সিলেট-কানাইঘাট সড়ক প্রায় অর্ধ ঘণ্টা অবরোধ করে প্রতিবাদ জানানো হয়।

জানা যায়, গত ২০১১ সালের নভেম্বর মাসে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার কুচাই এলাকার সুলতান আহমদের সঙ্গে গোলাপগঞ্জ উপজেলা বাঘা ইউনিয়নের পশ্চিম গোলাপনগর রজবমারা এলাকার মৃত ময়বুর রহমান ও ইয়ারুন নেছার কন্যা রুহেলা জাহান সুমাইয়ার বিয়ে হয়। বিয়ে প্রায় ৬ বছর অতিক্রম হয়েছে। রুহেলার স্বামী সুলতান আহমদ ২য় বিয়ে জন্য অনুমতি চাইলে রুহেলা তাতে দ্বিমত পোষণ করে। কোন ভাবেই রুহেলাকে রাজি করা না পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে সুলতান তালে গলা টিপে হত্যা করে আত্মহত্যা ফাঁদ তৈরি করে বলে এলাকাবাসী দাবী করেন। এছাড়া মানববন্ধনে শনিবার বিকেল ৩টায় গোলাপগঞ্জ উপজেলা সদরে মানববন্ধন কর্মসূচীর ঘোষণা দেয়া হয়।