গোলাপগঞ্জ পৌরশহরের ডাচ বাংলা ব্যাংকের সামন থেকে টাকা উত্তোলন করে বের হতেই এক মহিলাকে ছিনতাইকারিরা জোর করে গাড়ি তুলে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় স্থানীয় জনতা ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত কার ধাওয়া করে হেতিমগঞ্জের হিলালপুর এলাকায় পৌছার পর গাড়িসহ ১ ছিনতাইকারিকে আটক করা হয়। টহলরত পুলিশের সহযোগিতায় মহিলাকে উদ্ধার করা হয়েছে। পালিয়ে যায় ছিনতাইয়ে জড়িত অপর ৩ ছিনতাইকারি। তারা মহিলার কাছ থেকে টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় জনতার সহযোগিতায় পুলিশ একজন ছিনতাইকারিকে আটক করেছে। আটককৃত ছিনতাইকারি মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জের নগর গ্রামের মৃত রাইছ মিয়ার পুত্র নাহিব আলী (৪২)। কারের চালকসহ আরও দুই ছিনতাইকারি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।  এ দিকে ছিনতাইয়ের শিকার মহিলা উপজেলার ফুলবাড়ী ইউনিয়নের হাজিপুর শুকনা গ্রামের মতিন মিয়ার স্ত্রী মায়া বেগম( ৫৫)।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ডাচ বাংলা ব্যাংকের থেকে এক মহিলাকে তিন যুবক মহিলাকে জোর পূর্বক পার্কিং করা কালো রঙে কারের তুলে নেয়। এ সময় মহিলার আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে কারকে ধাওয়া করেন। সিলেটের দিকে দ্রুতগতিতে ছুটতে থাকা কারের পিছু নিয়ে হেতিমগঞ্জের হিলালপুর এলাকায় স্থানীয় মানুষ ও পুলিশের সহযোগিতায় কার আটক করা হয়। এ সময় কার থেকে চালকমহ তিনজন পালিয়ে যায়। স্থানীয় জনতা ১ ছিনতাইকারিকে উত্তমমধ্যম দিয়ে টহল পুলিশের হাতে সোপর্দ করেন।