ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল চেলসির দায়িত্ব নিয়ে নতুন দল গড়ার মিশনে নেমেছেন ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড। এরই মধ্যে জার্মানি থেকে টিমো ওয়ার্নারকে এনেছেন তিনি। নেদ্যারল্যান্ডস থেকে কিনেছেন হাকিম জায়িককে। এখন জার্মান মিডফিল্ডার হার্ভাটেজে চোখ তার। সঙ্গে ল্যাম্পার্ড অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের গোলরক্ষক জ্লান ওব্লাককে দলে ভেড়াতে চান।

কিন্তু ওব্লাকের জন্য ১২০ মিলিয়ন ইউরো চেয়ে বসেছে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। চাওয়া বলতে কী, ওব্লাকের রিলিজ ক্লজ ১২০ মিলিয়ন ইউরো। ওই অর্থ দিয়েই তাকে কিনতে হবে চেলসির। এমনিতে অ্যাথলেটিকো বস ডিয়াগো সিমিওনের তাদের গোলরক্ষককে বিক্রির কোন ইচ্ছা নেই। ওব্লাকও ক্লাব ছাড়ার ব্যাপারে তেমন কোন আগ্রহ দেখাননি।

চেলসির হাতে অবশ্য ভালো গোলরক্ষক আছে। কিন্তু স্প্যানিশ গোলরক্ষক কেপা আরিজাবালাগার ওপর ক্ষুদ্ধ চেলসি কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পপার্ড। উদ্ধত কেপাকে সামলাতে পারছেন না তিনি। তাছাড়া ২৫ বছর বয়সী স্প্যানিশ গোলরক্ষকের পারফরম্যান্স নিয়ে নেই প্রশ্ন। এর আগে কেপাকে নিয়ে মাউরিসিও সারিও একই সমস্যায় ভুগেছেন। চেলসি তাই কেপাকে বিক্রি করে কিংবা ধারে ছেড়ে দিয়ে ওব্লাককে দলে ভেড়াতে চায়।

এরই মধ্যে অবশ্য ভালেন্সিয়া কেপার প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছে। তারা দুই মৌসুমের জন্য ধারে তাকে দলে নিতে চায়। এরপর দুই পক্ষ সম্মত হলে কেপাকে কিনে নেবে ভ্যালেন্সিয়া। এছাড়া স্প্যানিশ লিগের সেভিয়া নতুন গোলরক্ষক খুঁজছে। অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকেও সম্ভাব্য ক্রেতা হিসেবে ধরে রেখেছে চেলসি। তারা কেপার জন্য ৮০ মিলিয়ন ইউরো দাম ধরে ওব্লাকের সঙ্গে তাকে ওদলবদল করতে চায়।

অথবা ভ্যালেন্সিয়া-সেভিয়ার কাছে কেপাকে বিক্রি করে সেই অর্থ দিয়ে ওব্লাককে দলে নিতে চায় তারা। কারণ চেলসি এরই মধ্যে দলবদলের বাজারে মোটা অর্থ খরচা করে ফেলেছে। ১২০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে ওব্লাককে  কেনার সামর্থ্য এখন তাদের নেই। তাছাড়া গোলরক্ষকের জন্য ১২০ মিলিয়ন ইউরো খরচা করাও সোজা কথা নয়। দুই মৌসুম আগে রোমা থেকে রেকর্ড ৬০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে অ্যালিসনকে কিনেছিল লিভারপুল। সেটাই এখন পর্যন্ত গোলরক্ষক হিসেবে ওটাই রেকর্ড চু্ক্তি।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

১২০০ কেজি ওজনের 'ডন'র দাম ১৫ লাখ!