বিয়ানীবাজারের খাসা এলাকার সংসড় সংস্কার কাজে ভুল বুঝাবুঝি থেকে কাজে বাধা দেয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। সিলেট-বিয়ানীবাজার আঞ্চলিক মহাসড়কের খাসা এলাকায় আজ ৪ ইঞ্চি সিসি ঢালাই শুরু করে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। দুপুরের দিকে কাজে অনিয়মের অভিযোগ তুলে এলাকাবাসী কাজ বন্ধ করে দেন।

খবর পেয়ে বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র আব্দুস শুকুর ও শিক্ষামন্ত্রীর মুখপাত্র দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল ছুটে গিয়ে খোজ খবর নেন। তারা সওজ’র কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে পুরো বিষয়টি তাদের বুঝিয়ে দেন দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা।

সওজ সিলেট অফিস সূত্রে জানা যায়, খাসায় প্রথমে ৮ ইঞ্চি বালুর স্তর, এরপর কোয়াসহ বালুর আরও ৮ ইঞ্চি স্তর দেয়ার পর ৪ইঞ্চি সিসি ঢালাই করা হবে। এরপর লোহা দিয়ে আরও ১২ ইঞ্চি আরসিসি ঢালাই করা হবে। পুরো ঢালাই কাজ শেষ হলে সড়কের থাকা আইল্যান্ডের সমান হয়ে যাবে সড়কটি। সওজ সড়ক সংস্কারের জন্য মাতৃভূমি নামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দেয়।

শিক্ষামন্ত্রীর মুখপাত্র দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল বিয়ানীবাজার নিউজ২৪কে বলেন, সিসি ঢালাইয়ের নীচে পলিথিন দেয়ার কথা থাকলেও তার দেয়নি। আমরা যাওয়ার আগেই পলিথিন অবশিষ্ট অংশে বিছানো হয়ে গিয়েছিলো। তিনি বলেন, কাজ পুনরায় শুরু করা হয়েছে। আগামীকাল কাজের একটি শিডিউল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রদান করবে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। এ কাজ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত আমাদের সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টি ভুল বুঝাবুঝি থেকে ঘটে গেছে। তবে আমাদের মানুষজন এ রাস্তা নিয়ে কতটা আন্তরিক সেটাও প্রমাণ হয়েছে।