আলী আহমদ বেবুল। ০৫ মার্চ ২০১৭।

ক্যান্সার আক্রান্ত বিয়ানীবাজারের মেধাবী শিক্ষার্থী রোকন অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের অপেক্ষায় রয়েছেন। বিয়ানীবাজার ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা ভারতের চলছে। চিকিৎসকরা অস্থিমজা প্রতিস্থাপনের জন্য একজন ‘ডোনারের’ ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত তার চিকিৎসা পুরোপুরি শুরু করতে পাররেছন না। তবে ভারতের চিকিৎসার ফলে তার অবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে।

বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র তত্ত্বাবধানে এবং যুক্তরাজ্যস্হ বিয়ানীবাজার উপজেলার বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠনের সার্বিক সহযোগিতায় রুকনের অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপনের (Bone Marrow  Transplantation) জন্য গত বছরের ২৬ অক্টোবর ভারতের তামিল নাড়ুর ভেলোরের ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল (সিএমসি ভেলোর)তে ভর্তি করা হয়। Bone Marrow প্রদানের জন্য রুকনের বোন ও ভাইকে ভেলোরে সাথে নিয়ে যাওয়া হলেও তাদের Bone Marrow টি নেগেটিভ হওয়াতে Transplantation করা সম্ভব হয়নি। সিএমসি ভেলোর চিকিৎসাধীন থাকা অবস্তায় রুকনের মাকে ঢাকা পিজি হাসপাতালে নেয়া হয় Bone Marrow পরীক্ষা করার জন্য। মায়ের Bone Marrow ও নেগেটিভ হয়। এ অবস্হায় ডনারের মাধ্যমে তা সংগ্রহ করার সিন্ধান্ত নেয়া হয়। সিএমসি ভেলোরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা ডনারের অপেক্ষা করার জন্য রুকনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হাপত্র দিয়ে বাংলাদেশে অবস্হানের পরামর্শ দেন। তারা বলেন ডনার না পাওয়া পর্যন্ত আপাতত বাড়ীতে থেকে প্রতি মাসে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়  এন্ড হাসপাতালে (পিজি হাসপাতাল) চেকআপ করার পরামর্শ দেন। প্রায় ৪৭ দিন সিএমসি ভেলোরে থাকার পর থেকে কলকাতা হয়ে বাংলাদেশে ফেরত আসার পথে রুকনকে পুনরায় বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র পক্ষ থেকে কলকাতার বিখ্যাত টাটা হাসপাতালেও ভর্তি করা হয়। প্রায় ১ মাস সেখানে রুকনের উন্নত চিকিৎসা চলে।টাটা হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরাও সিএমসি ভেলোরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতো সমান পরামর্শ ও ব্যবস্হাপত্র প্রদান করেন। সেখানেও Bone Marrow এর জন্য কোন ডনার না পাওয়ায় তা Transplantation করা সম্ভব হয়নি। বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সিএমসি ভেলোর এবং টাটা হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের     উন্নত চিকিৎসার কারণে রুকন আগের চেয়ে অনেকটা সুস্হতা বোধ করছেন।চিকিৎসকদের  পরামর্শে রুকন ১২ জানুয়ারী বাংলাদেশে ফিরে আসেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, রুকনকে সম্পুর্ণরুপে সুস্হ করে তোলতে হলে  Bone Marrow  Transplantation করার কোন বিকল্প নেই। বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র পক্ষ থেকে রুকনের Bone Marrow  Transplantation প্রক্রিয়াটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে সমপন্ন করার জন্য সিএমসি ভেলোর ও টাটা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।  উভয় হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র কর্মকর্তাদের আশ্বস্ত করে বলেছেন,Bone Marrow এর ডনার পাওয়ার পর দ্রুততম সময়ের মধ্যে রুকনের Bone Marrow  Transplantation প্রক্রিয়াটি সমপন্ন করা হবে। বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র কর্মকর্তারা জানিয়েছেন,মহান আল্লাহ রাবুল আলামীনের কৃপায় ও সকলের দোয়ায় রুকন যেন সহজেই তার  Bone Marrow এর ডনার পেতে সক্ষম হয় আমরা আন্তরিক ভাবে এ প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছি। এখানে উল্লেখ্য যে,  বাড়িতে আসার পর রুকনকে বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়  এন্ড হাসপাতালে প্রতি মাসে নিয়মিত চেকআপ করা হচ্ছে। ট্রাস্টের পক্ষ থেকে রুকনের আশু সুস্হতার জন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করা হয়েছে।
ফান্ড রাইজিং আপডেট
যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়রর্কস্হ বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সমিতি রুকনের চিকিৎসার জন্য প্রতিশ্রুত অর্থের মধ্যে ২ লাখ টাকা রুকনের বাংলাদেশস্হ একাউন্টে গত সপ্তাহে প্রেরণ করেছেন। এছাড়া বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সংস্থা সংযুক্ত আরব আমিরাত রুকনের চিকিৎসা তহবিলে ১ লাখ টাকা ইতোমধ্যে প্রদান করেছেন। এজন্য সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র সভাপতি মুহিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন ও কোষাধ্যক্ষ মামুন রশীদ।এদিকে রুকনের চিকিৎসার জন্য যাঁরা ফান্ডরাইজিং ডিনার অনুষ্ঠানে প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছেন তাঁদেরকে
Beanibazar Welfare Trust UK
A/C NO:  10120165
S.C- 60-02-63
NatWest Bank
Ref-Save Rukon  একাউন্টে প্রতিশ্রুত অর্থ জমা করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য ,রোকনুজ্জামান খান এর চিকিৎসার সাহায্যার্থে বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র উদ্যোগে এবং যুক্তরাজ্যস্থ বিয়ানীবাজার উপজেলার বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠনের সার্বিক সহযোগিতায়  গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায়  পূর্ব লন্ডনের রয়েল রিজেন্সি হলে  ফান্ডরাইজিং ডিনার অনুষ্ঠান সফল ভাবে সমপন্ন হয়। অনুষ্ঠানে রুকনের জন্য প্রায় ৩৮ হাজার পাউন্ডের তহবিল সংগ্রহ করা হয়।