কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে ভারতীয় এক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

আজ বুধবার (১৫ নভেম্বর) রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন রেলের মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) আব্দুল হাই এবং ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ‘কালিন্দী রেল কনস্ট্রাকশন’ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (ওভারসিস প্রজেক্ট) শারদ শর্মা।

অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, “বিএনপি সরকার রেলের প্রতি কোনো নজর দেয়নি। তখন নানা চক্রান্ত করে রেল কর্মচারীদের চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল। বর্তমানে রেলে শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে। এ সরকার রেলের মাধ্যমে সুলভে জনগণকে সেবা দিতে চায়।”

বর্তমান সরকারের সময়ে অনেক রেল প্রকল্প ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, অনেক প্রকল্প চলমান আছে। এগুলো শেষ হলে জনগণ রেলের মাধ্যমে আরও উন্নত সেবা পাবে।
নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত সময় আগামী দুই বছরের কাজ শেষ করবে বলে আশা প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন জানান- চুক্তি অনুযায়ী প্রায় ৫৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে কালিন্দী রেল আগামী দুই বছরের মধ্যে ৫২ দশমিক ৫৪ কিলোমিটার রেল লাইন নির্মাণ কাজ শেষ করবে।

এছাড়া নির্মাণ করা হবে ৫৯টি ছোট-বড় সেতু ও ছয়টি স্টেশন (জুড়ী, দক্ষিণভাগ, কাঁঠালতলী, বড়লেখা, মুড়াউল ও শাহবাজপুর)। ভারতের লাইন অব ক্রেডিট এর অর্থায়নে প্রকল্পটি নির্মিত হচ্ছে।
১৯১০ সালে চালু হওয়া কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশন ২০০২ সালে বিএনপি সরকারের সময় বন্ধ হয়ে যায়।

২০১৫ সালে কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ অংশের পুনর্বাসনে ভারতীয় প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শক নিয়োগ দেয় রেলপথ মন্ত্রণালয়। প্রকল্পের মোট প্রাক্কলিত ব্যয় ৬৭৮ কোটি টাকার মধ্যে ভারত ঋণ হিসেবে ৫৫৬ কোটি টাকা এবং সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ১২২ কোটি টাকা জোগান দেওয়া হবে।