মডেলদের অনুকরণে ‘বখাটেপনা’ স্টাইল করে চুল, দাড়ি ও গোঁফ না কাটার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন সিলেটের কানাইঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল আহাদ। তিনি পৌর সদরের শীল সদস্যদের সেলুন থেকে নানা স্টাইল সম্বলিত মডেলদের ছবি সরিয়ে ফেলারও নির্দেশনা দিয়েছেন। সোমবার বিকেলে থানায় তার কার্যালয়ে কানাইঘাট পৌর সদরের শীল সদস্যদের ডেকে এনে এমন নিদের্শনা দেন ওসি।

এসময় তিনি সেলুন ব্যবসায়ীদের ছাত্র ও উঠতি বয়সের যুবকদের ‘বখাটেপনা স্টাইলে’ চুল কাটাসহ দাড়ি ও গোঁফ মডেলিং করে না কাটার আহ্বান জানান। আর কেউ স্টাইলে চুল-দাঁড়ি কাটলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করেন।

তার দাবি, ‘বখাটে’ মডেলিং স্টাইলে চুল কাটা ও দাঁড়ি কাটা বাঙালি সাংস্কৃতির সম্পূর্ণ পরিপন্থি। স্টাইল করে চুল কাটার বিষয়ে প্রায় সময়ই ছাত্র ও যুবকদের অভিভাবকরা তার কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগও করেছেন। কেননা, বিভিন্ন স্টাইলে চুল কেটে বখাটের মতো ঘুরাফেরা করে ইভটিজিংসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ে এবং এসব স্টাইলে মানুষের চেহারার সৌন্দর্য্যের বিপর্যয় ঘটে। এতে করে সমাজের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।

এসময় শীল সদস্যরা ওসিকে অবগত করে বলেন, অনেক তরুণ শিক্ষার্থী ও যুবকরা এসে তাদেরকে বিভিন্ন স্টাইলে চুল ও দাঁড়ি কাটার কথা বলে থাকেন। এতে অনেক সময় তারা চুল কাটতে বাঁধা নিষেধ দিলে তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয় অনেকে।

বৈঠক শেষে শীল সদস্য কাজল চন্দ, লিটন চন্দ, নিশি চন্দ, সুমন চন্দ ও শিমুল চন্দ জানান, ওসি আব্দুল আহাদের কথা তারা গুরুত্ব সহকারে নিয়েছেন। এখন থেকে তারা কানাইঘাট বাজারে সেলুন সমিতির মাধ্যমে বিয়ষটি সবাইকে অবগত করবেন এবং বখাটে স্টাইলে চুল-দাঁড়ি কাটা থেকে বিরত থাকবেন।