কানাইঘাটে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক কিশোরীকে এক সপ্তাহ আটক করে রেখে ধর্ষণের ঘটনায় মিজানুর রহমান (২৮) নামে এক যুবকে গ্রেফতার করেছে কানাইঘাট থানা পুলিশ। সেই সাথে ভিকটিম কিশোরীকেও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ৩ অক্টোবর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে উপজেলার দিঘীরপাড় পূর্ব ইউনিয়নের দক্ষিণ কুওরেরমাটি গ্রামের ১৬ বছরের এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে অপহরণ করে বড়চতুল ইউনিয়নের বড়চতুল গ্রামের মৃত রফিকুল হকের পুত্র রাজ মিস্ত্রি মিজানুর রহমান (২৮) তার বাড়ীতে নিয়ে যায়। সেখানে টানা ৭দিন আটক রেখে কিশোরী মেয়েটিকে একাধিক বার ধর্ষণ করে মিজানুর রহমান। নিখোঁজের পর থেকে ভিকটিমের বাবার মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে থানা পুলিশ কিশোরী মেয়েটিকে উদ্ধার অভিযানে নামে। একপর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার গভীর রাতে থানার এস.আই এস.এম মাইনুল ইসলাম একদল পুলিশ নিয়ে মিজানুর রহমানের বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করেন। পরে তার স্বীকারউক্তি মূলক জবান বন্দি সূত্র ধরে তাৎক্ষণিক তার বাড়ির একটি বসত ঘর থেকে বন্ধি অবস্থায় কিশোরি মেয়েটিকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় ভিকটিমের পিতা আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে থানায় অপহরণ ও নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। থানার মামলা নং- ১৬, তারিখ- ১১/১০/২০ইং। ভিকটিম মেয়েটিকে রবিবার সিলেট এমএজি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে পাঠিয়েছেন পুলিশ এবং ধর্ষণকারী মিজানুর রহমানকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-