মহামারি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় সিলেটে ১১টি বিধি-নিষেধ জারি করেছে জেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) এসব বিধি-নিষেধের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

 

পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এসব বিধি-নিষেধ আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এগুলো অমান্য করলে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে জেলা প্রশাসন।

১১টি বিধি-নিষেধ হচ্ছে-
১) সামাজিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয়সহ সকল ধরণের জনসমাগম নিষিদ্ধ।
২) মসজিদ-মন্দিরসহ সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে যথাথথ স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করাতে হলে।
৩) পর্যটন-বিনােদনকেন্দ্র, সিনেমা হল, থিয়েটার হলে অন্য জেলার পর্যটক/দর্শনার্থীদের আগমন নিষিদ্ধ।
৪) সিএনজি অটোরিকশা-বাসসহ সকল প্রকার গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। গণপরিষহণে ধারণ ক্ষমতার ৫০ ভাগের অধিক যাত্রী পরিবহন করা যাবে না।

 

৫) হাট-বাজার, মার্কেট, শপিংমলসহ বিভিন্ন স্থানে কেনা-বেচা রাত ৯টা পর্যন্ত চালু থাকবে। এসব স্থানে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কেই যথাযথভাবে সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে এবঙ আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধান করতে হবে।
৬) প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাদ্রাসা, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, বিশ্ববিদ্যালয় ও কোটিং সেন্টারসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।
৭) প্রয়োজন ব্যতীত ঘরের বাইরে অবস্থান করা যাবে না। অপ্রয়ােজনীয় ঘােরাফেরা বা আড্ডা নিষিদ্ধ। এছাড়া জরুরি প্রয়ােজন ছাড়া রাত ১০টার পর বাইরে বের হওয়া যাবে না।

 

৮) যে কোনো প্রয়োনে ঘরের বাইরে গেলে আবশ্যিককভাবে মাস্ক পরিধান করতে হবে। সকল ধরনের স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পরিপালন করতে হবে।
৯) সভা, সেমিনার, প্রশিক্ষণ, কর্মশালা যথাসম্ভব অনলাইনে আয়ােজন করতে হবে।

১০) হােটেল-রেস্তোরাসমুহে ধারণ ক্ষমতার আর্থেকের বেশি ক্রেতা প্রবেশ করানাে যাবে না।
১১) কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ এবং অবস্থানকালীন সময়ে সর্বদা আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধানসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যাবিধি মেনে চলতে হবে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজার উপজেলার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে ABtv'র কুইজ প্রতিযোগিতা, জিতে নিন আকর্ষণীয় পুরস্কার