জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও সিলেট জেলা সভাপতি আল্লামা শায়খ জিয়া উদ্দীন বলেছেন, আল্লাহর জমিনে আল্লাহর নেজাম কায়েম করতে কর্মীদের অন্য সকলের থেকে আলাদা হতে হবে। এখলাস, আনুগত্য আর ত্যাগের ধারক বাহক হবেন তাঁরা। কোনো ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করা বা খাহেশাতের গোলামী করা এটা ইসলামী সংগঠনের কর্মীদের কাজ হতে পারে না। আজ বৃহস্পতিবার বিয়ানীবাজর পৌরশহরের একটি অভিজাত রেষ্টুরেন্টে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার উপজেলার ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি মাওলানা আসআদ উদ্দীন আল মাহমুদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল খালিক কাসেমীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগরী জমিয়ত সভাপতি মাওলানা খলিলুর রাহমান, জেলা সহ সভাপতি আলহাজ্ব শামসুদ্দীন, সহ-সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মালিক ক্বাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা নজরুল ইসলাম।

কাউন্সিলে সর্বসম্মতিক্রমে মাওলানা আব্দুশ শহীদকে সভাপতি, হাফিজ মাওলানা আব্দুল খালিককে সেক্রেটারি, আনোয়ারুল ইসলামকে সাংগঠনিক সম্পাদক, তোফায়েল আহমদকে যুব বিষয়ক সম্পাদক ও হাফিজ মারুফুল হাসানকে ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক করে ৪৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সহ-সভাপতি আসআদ উদ্দীন আল মাহমুদ, আতিকুর রাহমান, ফখরুদ্দীন সাদিক, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা আব্দুল হক্ব ক্বাসেমি, সহ সম্পাদক মুফতি শিব্বির আহমদ, ফারুক আহমদ, রায়হান আহমদ,সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়ালী উল্লাহ, প্রচার সম্পাদক রুহুল আমীন খান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মাও: আবুল ক্বাসিম প্রমুখ।

কাউন্সিল অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগরী সহসভাপতি মাওলনা মুশতাক আহমদ চৌধুরী, খলিলুর রহমান, আব্দুল হামীদ খান, এমাদ উদ্দিন, জালাল উদ্দিন, আব্দুর নূর, সহ উপজেলার আওতাধীন প্রত্যেক ইউনিয়ন শাখার দায়িত্বশীলবৃন্দ।

কাউন্সিল অধিবেশন শেষে সিলেট জেলা জমিয়তের সহ সভাপতি মুফতি মুজিবুর রহমানের মোনাজাতের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি করা হয়।