দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ২৮৩ জনে। সেইসঙ্গে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে অক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন আরও তিন হাজার ৪৭৩ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত হয়েছেন সাত লাখ ১৫ হাজার ২৫২ জন।

শনিবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা গেছে। এর আগে শুক্রবারও কভিডে আক্রান্ত হয়ে দেশে ১০১ জনের মৃত্যু হয়; যা একদিন ব্যবধানে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এছাড়া এ দিন নতুন শনাক্ত হন চার হাজার ৪১৭ জন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত থেকে সুস্থ হয়েছেন পাঁচ হাজার ৯০৭ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ছয় লাখ আট হাজার ৮১৫ জন। অর্থাৎ শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ১২ শতাংশ। এছাড়া শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার এক দশমিক ৪৪ শতাংশ। আর টেস্ট বিবেচনায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয় ১৫ হাজার ৪১৩টি। এরমধ্যে সবমিলে নমুনা পরীক্ষা করা হয় ১৬ হাজার ১৮৫টি। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫১ লাখ ৫০ হাজার ৬৬৩টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হওয়া ১০১ জনের মধ্যে পুরুষ ৬৯ জন। আর নারী ৩২ জন। পুরুষ মৃত্যু হার ৭৪ দশমিক ২৫ শতাংশ। নারী মৃত্যু হার ২৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত সাত হাজার ৬৩৫ জন পুরুষের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে দুই হাজার ৬৪৮ জন নারীর মৃত্যু হয়েছে।

মারা যাওয়া ১০১ জনের মধ্যে তিনজন ২১ থেকে ৩০ বছরের। সেইসঙ্গে ৩১ থেকে ৪০ বছরের তিনজন। ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে আটজন। ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ২৯ জন। ৬০ বছরের বেশি বয়সী মারা গেছেন ৫৮ জন।

তবে শনাক্ত কিছুটা কমছে। শুক্রবার যেখানে শনাক্ত হন চার হাজার ৪১৭ জন, সেখানে শনিবার শনাক্ত তিন হাজার ৪৭৩ জন। গত ৭ এপ্রিল শনাক্ত হন সাত হাজার ৬২৬ জন; যা দেশে একদিনে ব্যবধানে শনাক্তে সর্বোচ্চ। এছাড়া গত ৬ এপ্রিল একদিনে করোনা শনাক্ত হয়েছিল সাত হাজার ২১৩ জনের।

গতবছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হন। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর থেকে মাঝখানে কিছু কমলেও আক্রান্ত এবং মৃত্যু ক্রমেই বাড়ছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-