মঙ্গলবার রাত ৮টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়ানীবাজার পৌরসভার এলাকার খাসা নয়াবাজার এলাকা থেকে সিএনজি অটোরিকশাসহ তাদের আটক করা হয়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অপর একটি সিএনজি অটোরিকশাতে থাকা আরও কয়েকজন ডাকাত পালিয়ে যায়।

আটককৃত তিন ডাকাতদের মধ্যে দুজনই বিয়ানীবাজারের বাসিন্দা। তারা হচ্ছে- বিয়ানীবাজার পৌরসভার পশ্চিম নয়াগ্রামের মালু হোসেনের ছেলে সাইদুল ইসলাম ওরফে সাইরুল (৩২) ও দুবাগ ইউনিয়নের বাঙ্গালহুদা গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে হোসেন আহমদ (৩০)। অন্য আরেকজন হচ্ছে- কমলগঞ্জ উপজেলার কাটাবিল গ্রামের প্রয়াত মদরিছ মিয়ার ছেলে ইসলাম মিয়া (২৮)।

পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, আটককৃত তিনজনক থানা হেফাজতে নিয়ে আসার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ‘তারা মুড়িয়া ইউনিয়নের কয়েকটি বাড়িতে ডাকাতির পরিকল্পনা ছিল’ বলে জানিয়েছে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বিয়ানীবাজারে বড় ধরনের ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে সংঘবদ্ধ ডাকাতচক্র- পুলিশের সোর্স মাধ্যমে এমন সংবাদে নড়েচড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন। সিলেটের পুলিশ সুপার থেকে সহকারি পুলিশ সুপার (সার্কেল) এর সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ, পরামর্শ এবং পুলিশের বিশ্বস্থ সোর্স এর মাধ্যমে ডাকাত চক্রের গতিবিধি লক্ষ্য রাখা হয়। গত তিনদিন থেকে এ ডাকাতচক্রের সন্ধানে কয়েকজন পুলিশ সোর্স লেগে ছিল। একই সাথে পুলিশ প্রযুক্তির সহায়তায় তাদের সর্বশেষ অবস্থান নজরে রেখেছিল।

অবশেষে মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে খাসা এলাকায় আসার পর আগে থেকে ওৎপেতে থাকা বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ ডাকাতদের বহনকারি মাইক্রোবাসের গতিরোধ করে। এসময় ডাকাতরা পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ তিন ডাকাত সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়। আটককৃতদের বিয়ানীবাজার থানা দ্রুত সময়ের মধ্যে নিয়ে আসে পুলিশ। এ সময় ডাকাতদের কাছে থাকা ব্যাগ থেকে দুইটি বন্দুক, একটি রিবলবার, ১৪টি কার্তুজ, ৩টি রাম দা, অত্যাধনিক কাটারসহ ডাকাতিকাজে ব্যবহৃত হয় এমন সরঞ্জাম উদ্ধার করে পুলিশ। ধৃত ডাকাতদের আটককালে সহকারি পুলিশ সুপার (সার্কেল) সুদীপ্ত রায়, বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিল্লোল রায়, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মেহেদী হাসানসহ থানা পুলিশের এসআই, এএসআইসহ একদল পুলিশ।

ডাকাত আটক ও অস্ত্রসহ ডাকাতিকাজে ব্যবহৃত সরঞ্জাম উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিয়ানীবাজার থানার ওসি হিল্লোল রায়। তিনি বলেন, ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

প্রথমবারের মতো বিয়ানীবাজারে নির্মিত হচ্ছে আধুনিক 'ইনডোর ব্যাডমিন্টন স্টেডিয়াম'