সুরমা নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ভাবে একাধিক ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের দায়ে ড্রেজার ও বলগেট জব্দ করেছে উপজেলা প্রশাসন। কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম মঙ্গলবার বিকেল ২টায় উপজেলা গাছবাড়ী বাজার এলাকা পরিদর্শন করে বালু উত্তোলনের দায়ে একটি ড্রেজার ও একটি বলগেট নৌকা জব্দ করেন। জব্দকৃত বলগেট ও ড্রেজার কানাইঘাট থানা পুলিশের সহায়তায় নদীপথে কানাইঘাট বাজার এলাকায় নিয়ে আসা হয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানিয়েছেন, মারাত্মক নদী ভাঙ্গন কবলিত কানাইঘাট গাছবাড়ী বাজার এলাকার সুরমা নদীতে একাধিকড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের ঘটনায় গাছবাড়ী বাজার সহ পার্শ্ববতী নিজ দলইকান্দি গ্রাম সহ আশপাশ এলাকার সুরমা ডাইকে ভয়াবহ ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে মাঝেমধ্যে অভিযান চালালেও বালু উত্তোলন বন্ধ হয়নি। স্থানীয় এলাকাবাসী গাছবাড়ী বাজার সহ আশপাশ এলাকা নদী ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করার জন্য সিলেটের জেলা প্রশাসক সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে সম্প্রতি অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার সুরমা নদীর গাছবাড়ী বাজার সহ আশপাশ এলাকা থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ এবং এর সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করলে মঙ্গলবার দুপুরে আকস্মিক ভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম সেখানে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযান চলাকালে অবৈধ বালু উত্তোলনের সাথে জড়িত প্রভাবশালী চক্র ছিটকে পড়ে। একাধিক ড্রেজার ঘটনাস্থল থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসার আগেই নদীপথে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে বালু উত্তোলনকারীরা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ গত কয়েক মাস ধরে একটি প্রভাবশালী চক্রের ছত্রছায়ায় স্থানীয় চলিতাবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা জেলা ছাত্রলীগ নেতা হারুন রশিদ উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক নাজিম উদ্দিন সহ বেশ কয়েকজন মিলে ভাঙ্গন কবলিত গাছবাড়ী বাজার সহ আশপাশ এলাকা থেকে অদ্যবধি পর্যন্ত প্রায় কোটি টাকার বালু উত্তোলন করে বিক্রি করেছেন। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে এলাকার কেউ বাঁধা দিলে তাদের অস্ত্র ও মাদক মামলায় আসামী করে জেলে পাঠানোর হুমকি দেয় বালু উত্তোলনকারীরা। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সাথে স্থানীয় প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা জড়িত রয়েছেন বলে গাছবাড়ী বাজারের ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল জানিয়েছেন।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, গাছবাড়ী বাজার সংলগ্ন সুরমা নদীর নিজ দলইকান্দি গ্রামে একটি বালু মহাল রয়েছে। কিন্তু সেখান থেকে মাঝে মধ্যে একটি চক্র ড্রেজার দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করার যখনই চেষ্টা করে আমরা সেই জায়গায় অভিযান চালাই। গতকাল অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের সংবাদ পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে স্থানীয় বানীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ, ভূমি ও তহসিল অফিসের লোকজন উপস্থিতিতে একটি ড্রেজার ও বলগেট নৌকা জব্দ করা হয়। কাউকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করতে দেয়া হবে না।
এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম জানিয়েছেন।