২০১৫ সালে রাজনীতি থেকে অবসর নেয়া সিলেট-৬ আসনের (বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ) দুইবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ড. সৈয়দ মকবুল হোসেন লেচু একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। নানা কারণে আলোচিত-সমালোচিত সাবেক এ সাংসদ বর্তমানে রাজনীতি ও ভোটের মাঠ পর্যবেক্ষণ করছেন। তিনি জানান, বিএনপি কিংবা স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পাশাপাশি বিএনপিও আটঘাট বেঁধে নেমেছে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা রয়েছেন নির্বাচন মূখী। এ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ নুরুল ইসলাম নাহিদ একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন দলে দলীয় সূত্রে নিশ্চিত করেছে। আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা বিএনপি’র মতো দীর্ঘ নয়। সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন কানাডা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছরওয়ার হোসেন। বিয়ানীবাজার ও গোলাপগঞ্জ উপজেলার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের একটি অংশের নেতাকর্মীদের নিয়ে বিভিন্ন সভা সমাবেশে অংশ নিচ্ছেন। এছাড়া সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এড. নাসির উদ্দিন খান। আওয়ামী লীগের জোটের শরিক জাতীয় পার্টির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বর্তমান সংসদ সদস্য (সিলেট-৫) সেলিম উদ্দিন এমপিও সিলেট-৬ আসন থেকে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। একই সাথে জাতীয় পার্টি প্রেসিডিয়াম সদস্য এটিএম তাজও রয়েছেন আলোচনায়।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীতা ঘোষণা দিয়ে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন জেলা বিএনপি’র সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, উপদেষ্টা মাওনালা আব্দুর রশিদ ও সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক শিল্পপতি ফয়সল আহমদ চৌধুরী। তাদের পাশাপাশি জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামীর মাওনালা হাবিবুর রহমান ব্যস্ত রয়েছেন নির্বাচনী প্রচারণায়।

বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪ এর সাথে মোবাইল ফোনে আলাপকালে সৈয়দ মকবুল বলেন, আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হওয়ার কোন ইচ্ছে নেই। যদিও কিছু সংবাদ মাধ্যমে এসব আজগুবি খবর প্রকাশ হয়েছে। সারা জীবন আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে রাজনীতি করে এসে আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচনে প্রার্থী হবো- এটা কোনভাবে সম্ভব নয়। তিনি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের প্রশংসা করে বলেন, দেশে সৎ রাজনীতিবিদ পাওয়া সত্যিই কঠিন। সেখানে নাহিদ ভাই একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ। তাঁর সৎ জীবন আমাকে অনুপ্রাণিত করে। তাঁকে সম্মান-শ্রদ্ধা করি। সৈয়দ মকবুল বলেন, আগামী নির্বাচন কিভাবে হচ্ছে। কোন কোন দল অংশ নিচ্ছে। বিএনপি জোটগতভাবে নির্বাচন করবে কি না এসব বিষয় পর্যবেক্ষণ করছি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি হাই কমান্ডের কারো সাথে কোন যোগাযোগ নেই। এনিয়ে কোন নেতার সাথে আলোচনাও করিনি। নির্বাচনের সঠিক সময়ই বলে দেবে প্রার্থী দল থেকে না স্বতন্ত্র। কারণ আমি দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি স্বতন্ত্রভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।