২১শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং | ৮ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারের সন্তান মুস্তাফিজ শফিসহ সিটি ব্যাংক-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার পেলেন ১২ সাহিত্যিক

https://i2.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/04/Untitled-1-copy.jpg?resize=1200%2C630

বসন্তের বর্ষণমুখর দুপুর। অন্যরকম এমন দিনে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে সোমবার দেওয়া হলো সিটি ব্যাংক-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার। ২০১৯ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত গ্রন্থের জন্য সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় বিয়ানীবাজার কৃতিসন্তান দৈনিক সমকাল পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফিসহ ১২ সাহিত্যিক অর্জন করলেন এ স্বীকৃতি।

চলতি বছর সিটি ব্যাংক-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন কথাসাহিত্যে ‘কয়লা তলা ও অন্যান্য’ (অন্যপ্রকাশ) গ্রন্থের জন্য সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম এবং ‘মামলার সাক্ষী ময়না পাখি’ (প্রথমা) গ্রন্থের জন্য শাহাদুজ্জামান; কবিতায় ‘পানতুম’ (প্রথমা) গ্রন্থের জন্য মারুফুল ইসলাম এবং ‘১৯ নম্বর কবিতা মোকাম’ (অনন্যা) গ্রন্থের জন্য আফজাল হোসেন; প্রবন্ধ ও মুক্তিযুদ্ধ শাখায় ‘সময় বহিয়া যায়’ (কথাপ্রকাশ) গ্রন্থের জন্য ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও ‘১৯৭১ প্রতিরোধ সংগ্রাম বিজয়’ (প্রিয়মুখ) গ্রন্থের জন্য মেজর জেনারেল মো. সরোয়ার হোসেন; ভ্রমণ ও আত্মজীবনী শাখায় ‘সুদূরের অদূর দুয়ার’ (সময়) গ্রন্থের জন্য ফারুক মঈনউদ্দীন; শিশুসাহিত্য শাখায় ‘ভূত কল্যাণ সমিতি’ (কথাপ্রকাশ) গ্রন্থের জন্য মুস্তাফিজ শফি ও ‘রঙের গাছ’ (শিশুপ্রকাশ) গ্রন্থের জন্য মোকারম হোসেন; এবং প্রথম বই শাখায় ‘ঘটনা কিংবা দুর্ঘটনার গল্প’ (জার্নিম্যান বুকস) গ্রন্থের জন্য মাজহারুল ইসলাম, ‘নিঃসঙ্গতার পাখিরা’ (অন্যপ্রকাশ) গ্রন্থের জন্য হক ফারুক আহমেদ ও ‘অন ডেইজ লাইক দিস’ (জার্নিম্যান বুকস) গ্রন্থের জন্য শায়রা আফরিদা ঐশী।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। দেশের বাইরে থাকায় সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফির পক্ষে কথাপ্রকাশের প্রকাশক জসিম উদ্দিন, শাহাদুজ্জামানের পক্ষে তার খালা শরীফা বকুল এবং শায়রা আফরিদা ঐশীর পক্ষে তার বাবা কামরুল হাসান শায়ক ও মা মৌসুমী আক্তার আলো পুরস্কার গ্রহণ করেন।

পুরস্কারপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে আনিসুজ্জামান বলেন, এবারের সিটি ব্যাংক-আনন্দ আলো সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন একাধিক প্রজন্মের লেখক। ভবিষ্যতে এ পুরস্কার আরও ব্যাপকতা পাবে, এ প্রত্যাশা করে তিনি বলেন, যারা নতুন লেখক তারা এ পুরস্কার পেয়ে উৎসাহ পাবেন এবং পুরনো লেখকরা সম্মানিত হবেন।

অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্তদের নাম ঘোষণা করেন পুরস্কার প্রদান কমিটির প্রধান ও বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী। তিনি বলেন, এবারের একুশে গ্রন্থমেলায় প্রায় পাঁচ হাজার নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে। তার মধ্য থেকে বাছাই করে পুরস্কার দেওয়া সত্যিই কঠিন কাজ।

চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও আনন্দ আলোর সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি ফরিদুর রেজা সাগর বলেন, একুশে গ্রন্থমেলাকে আরও গুরুত্বপূর্ণ ও অর্থবহ করে তুলতে ১৪ বছর ধরে এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।

সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মাসরুর আরেফিন বলেন, এ বছরই প্রথম সিটি ব্যাংক এ পুরস্কারের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছে। আগামী বছর এ পুরস্কার আরও বর্ধিত আকারে দেওয়ার এবং এর অর্থমূল্য আরও বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

পুরস্কার পাওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, সব সময়ই বইয়ের অনেক প্রতিদ্বন্দ্বী ও প্রতিযোগী ছিল। সময়ের সঙ্গে এখন তা আরও বেড়েছে। তারপরও বই টিকে আছে। এর আবেদন কখনই শেষ হবে না।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন আনন্দ আলোর সম্পাদক রেজানুর রহমান এবং পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিকরা। দিলরুবা সাথীর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানটি চ্যানেল আইতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

সূত্র- দৈনিক সমকাল।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

সিলেটের প্রখ্যাত আলেম শফিকুল হক আমকুনীর ইন্তেকাল

বিয়ানীবাজারের সানেশ্বর সপ্রাবিতে বর্ষবরণ ও কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান

এতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে হিউম্যান রিলিফ ফাউন্ডেশন ইউ.কে’র নগদ অর্থ প্রদান

বিয়ানীবাজারে গ্রামীণ ফোনের টাওয়ারে চুরি, দক্ষিণ সুরমা থেকে আটক ৩

গড়রবন্দ সপ্রাবি'তে স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে স্কুল হেলথ প্রোগ্রামের সভা অনুষ্ঠিত

বিয়ানীবাজারে যাত্রা শুরু করেছে 'ওয়ালিদাইন বস্ত্র বিতান'

ঘোষণাঃ