১৬ই জুন, ২০১৯ ইং | ২রা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারে ঐতিহ্যবাহী ষাঁড়ের লড়াই অনুষ্ঠিত (ভিডিও সহ)

https://i2.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/04/bull-fight.jpg?resize=1200%2C630

বাংলাদেশের পল্লী অঞ্চলে অন্যতম জনপ্রিয় ও ঐতিহ্যবাহী একটি খেলা হলো ষাঁড়ের লড়াই। লোকবাংলার বিলুপ্তপ্রায় এই খেলাকে নতুন প্রজন্মের কাছে পরিচিত করতে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও বিয়ানীবাজারে আয়োজন করা হয়েছে ঐতিহ্যবাহী এ লড়াই প্রতিযোগিতা। মঙ্গলবার (২রা এপ্রিল) উপজেলার লাউতা ইউনিয়নের জলঢুপ কমলাবাড়ি মাঠে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা ২০টি ষাঁড়ের অংশগ্রহনে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

ষাঁড়ের লড়াই দেখতে স্থানীয় কমলাবাড়ি মাঠে কৌতূহলী দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় ছিল লক্ষণীয়। দীর্ঘদিন পর অনুষ্ঠিত এই ষাঁড়ের লড়াইও ছিল বেশ উপভোগ্য। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চলে এ প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতায় সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ২০টি (১০ জোড়া) ষাঁড় অংশ নেয়। লড়াইয়ে অংশ নেওয়া প্রতিটি ষাঁড়ই ছিল বাহারি রংয়ের আকর্ষণীয় দেহের। এসকল ষাঁড়ের সৌখিন মালিক (দেশী ও প্রবাসী) নানা রং ঢং আর বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে তাদের দলবল নিয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। সকাল থেকেই প্রতিযোগিতার মাঠে বাদ্যযন্ত্রসহ একের পর এক ষাঁড়, ষাঁড়ের মালিক ও দলের সমর্থকরা মাঠে আসতে থাকেন।

ষাঁড়ের লড়াই শুরুর আগেই স্থানীয় কমলাবাড়ি মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। ষাঁড়ের লড়াই দেখতে শিশু-কিশোর, মহিলা, ছেলে, বুড়ো নানা বয়সের প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটে। বর্ণিল রঙের ষাঁড়ের উপস্থিতি প্রতিযোগিতাকে প্রাণবন্ত করে রূপ দেয় উৎসবের আমেজে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারি প্রত্যেকটি ষাঁড়কে বিভিন্ন ও বিচিত্র নাম দেওয়া হয়।

প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত লড়াইয়ে অংশ নেয় নেত্রকোনা থেকে আসা ‘বিজয় বাংলা’ ও বড়লেখা উপজেলার বর্ণী ইউনিয়নের ‘বাবুল সম্রাট’। লড়াইয়ে ষাঁড় দুটো রুদ্ররোষে একে অন্যের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। প্রতিপক্ষকে পরাজিত করা না পর্যন্ত শ্বাসরুদ্ধকর এ লড়াই চলতে থাকে। টান টান উত্তেজনাকর প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত লড়াইয়ে নেত্রকোনার বিজয় বাংলাকে হারিয়ে বড়লেখার বাবুল সমাট্র চ্যাম্পিয়ন হয়।

এদিকে, দীর্ঘদিন থেকে হাইকোর্টে নিষেধাজ্ঞা থাকায় ষাঁড়ের লড়াই প্রতিযোগিতার আয়োজন বন্ধ ছিল বেশ কয়েকদিন। বর্তমানে এ নিষেধাজ্ঞা হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত থাকায় পুনরায় নতুন উদ্দীপনায় ঐতিহ্যবাহী এ প্রতিযোগিতার আয়োজন শুরু হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী এ খেলাকে কেন্দ্র করে আবারও ষাঁড় লালন-পালন করার প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। নেমে যাওয়া ষাঁড়গুলোর দামও বাড়তে শুরু হয়েছে। সঠিক পৃষ্ঠপোষকতা ও নিয়মিত আয়োজন করা হলে গ্রামবাংলার জনপ্রিয় এ বিনোদনমূলক প্রতিযোগিতা প্রাণ ফিরে পাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা ।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে আমিরাত সরকারের গোল্ডকার্ড পেলেন বিয়ানীবাজারের মাহতাবুর

জেলা প্রশাসকের সাথে বিয়ানীবাজারের ইউএনওর বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর

গোলাপগঞ্জে মহিলাসহ টাকা ছিনতাই- আটক-১

গোলাপগঞ্জে ইয়াবাসহ মাদক কারবারি আটক

সংক্ষিপ্ত সফর শেষে দেশে পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর- বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা

বৃষ্টির পানিতে প্লাবিত ঢাকাদক্ষিণ বাজার!

ঘোষণাঃ