২২শে মে, ২০১৯ ইং | ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন- প্রার্থীদের পক্ষে আঞ্চলিক প্রীতি প্রবল হচ্ছে

https://i1.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/03/pics-with-marka.jpg?resize=1200%2C630

বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাবের চেয়ে আঞ্চলিক প্রভাব প্রকট হচ্ছে। উপজেলার কিছু ইউনিয়নে ভোটারদের নিজ প্রার্থীর পক্ষে টানতে সমর্থকরা নিজ এলাকাকে পুঁজি করছেন। এতে রাজনৈতিক দায়িত্বশীলরাও তাল মেলানোর ফলে এসব প্রচারণা রূপ নিয়েছে আঞ্চলিক ইস্যুতে।

নির্বাচনের প্রচারণা শুরু আগে থেকে উপজেলার দক্ষিণ অঞ্চলের দুই ইউনিয়নের ভোটারদের আকৃষ্ট করতে প্রতিদ্বন্দ্বি দুই প্রার্থী আবুল কাশেম পল্লব (হেলিকপ্টার) ও শামীম আহমদ (মোটর সাইকেল) এলাকার প্রীতির প্রতি জোর দেন। এতে তারা সফল হয়েছেন। একই সাথে পৌরসভা এলাকায় অপর প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী জাকির হোসেনও (আনারস) নিজ অবস্থান থেকে এলাকা ও পৌরবাসীর সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি পৌর অঞ্চলকে বিশেষ করে মধ্য ও উত্তর অংশের মানুষের সমর্থন আদায় করতে সমর্থ হয়েছেন। এখানে পিছিয়ে নেই আবুল কাশেম পল্লবও। পৌরসভার দক্ষিণ অঞ্চলে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন।

আঞ্চলিক ইস্যুটি সাম্প্রদায়িক ইস্যুতে রূপ দিতে চাচ্ছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী আলকাছ আলী (ঘোড়া)। তিনি নিজ সম্প্রদায়ভুক্ত এলাকার ভোটারদের আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন ইস্যু সামনে নিয়ে এসেছেন। এসব ইস্যু এসব ভোটাররা লুফে নিলে ভোটের বর্তমান চিত্র পাল্টে যাবে।

উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল হাসনাত (দোয়াত কলম) প্রচারণায় দলের অধিকাংশ নেতাকর্মীদের পাচ্ছেন না। তিনি নিজ এলাকা পৌরসভার শ্রীধরা এলাকার ভোটারদের নিজের পক্ষে নিতে কাজ করছেন। কিন্তু কতটা সফল হতে পারবেন- অন্য প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের মতো এখনো স্পষ্ট হয়নি- এমনটি মন্তব্য করেছেন স্থানীয় রাজনৈতিক ও আঞ্চলিক ভোটের বিশ্লেষকরা।

প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের আঞ্চলিক প্রচারণায় রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন পাওয়া একমাত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান (নৌকা) কিছুটা হলেও বেকায়দায় পড়েছেন। বিশেষ করে উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ দায়িত্বশীলরা নৌকার প্রচারণা রেখে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষে গোপনে ও প্রকাশ্যে প্রচারণায় যুক্ত হওয়ায় আওয়ামী শিবিরে হতাশা দেখা দিয়েছে। তবে তাঁর পক্ষে ছাত্রলীগের বিবদমান কয়েকটি অংশ প্রচারণা যুক্ত হওয়ায় নৌকায় প্রাণ ফিরেছে। দু/একদিনের মধ্যে নৌকার পক্ষে প্রচারণায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যুক্ত হতে পারেন এমন আভাস রয়েছে।

এদিকে আতাউর রহমান খানের পক্ষে তার নিজ ইউনিয়নবাসীও প্রচারণা নেমেছেন। ফলে রাজনৈতিক ও আঞ্চলিক- এ দুই অবস্থান কাজে লাগছে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যানের পক্ষে।

উপজেলা নির্বাচনের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে দায়ি করছেন নির্বাচন বিশ্লেষক প্রাক্তন শিক্ষক ও রাজনীতিক মজির উদ্দিন আনছার। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দলের প্রার্থী দিলেও অধিকাংশ নেতাকর্মীরা নৌকার বাইরে রয়েছেন। দলীয় নির্বাচন হলেও এ নির্বাচন থেকে সরে দাড়িয়েছে বিএনপি। তিনি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর দায়িত্বশীলদের দ্বিমূখী আচরণের কারণে ফ্যাক্টর হচ্ছে আঞ্চলিক ইস্যু। এটি আমাদের ভবিষ্যতের জন্য খারাপ দৃষ্টান্ত। কারণ আঞ্চলিকতার ইস্যুটি যোগ্য প্রার্থীদের চেয়ে অযোগ্য প্রার্থীদের পক্ষে চলে যায়।এজন্য আমাদের উচিত যোগ্য প্রার্থী বাছাই করে ভোট দেয়া।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

নালবহর ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউকে'র উদ্যোগে অস্বচ্ছল পরিবারের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ

গোলাপগঞ্জে ভেজাল বিরোধী অভিযানে দুই প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

বিয়ানীবাজারে ছাত্র জমিয়তের প্রবাসী সংবর্ধনা ও ইফতার মাহফিল কাল

নালবহরে ক্বিরাত ও হামদ-নাত প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব সম্পন্ন

সাবেক ক্রিকেটারদের বিশ্বকাপ পর্যালোচনা- সেমিফাইনালের চার দলে নেই বাংলাদেশ!

কোপায় মেসির সঙ্গী আগুয়েরো-দিবালা, নেই ইকার্দি

ঘোষণাঃ