১৯শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৬ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারে নাশকতার আগুনে দুই চাচাসহ পরিবারের সদস্যদের পুড়িয়ে মারার চেষ্টা।। যুবক পলাতক

https://i1.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/03/344343.jpg?resize=1200%2C630

পারিবারিক বিরোধের জের ধরে নাশকতা চালিয়ে আপন দুই চাচাসহ তাদের পরিবারের সদস্যদের পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে যুবক জুবায়ের আহমদের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ২টায় বিয়ানীবাজার পৌরসভার উত্তর শ্রীধরায় পেট্টোল ঢেলে ঘরে আগুন লাগিয়ে দেয় যুবক জুবায়ের। ঘর থেকে বের হওয়া ছয়টি দরজায় বাইরে থেকে তালা দিয়ে রাখে মাদ্রাসায় পড়াশোনা করা জুবায়ের (৩০)। এ ঘটনার পর থেকে সে পলাতক রয়েছে। তার পিতার নাম বিলাল আহমদ।

খবর পেয়ে রাত ২টায় বিয়ানীবাজার থানার একদল টহল পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং নাশকতায় ব্যবহৃত দ্রব্য জব্দ করে। শুক্রবার সকালে পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পূর্বে স্থানীয় মানুষের সহায়তায় আগুনে পুড়া থেকে রক্ষা পান সেলিম মাহমুদ, নাজিম মাহমুদসহ পরিবারের ১৫ সদস্য। আগুনে হাত ও পা পুড়িয়ে আহত হয়েছেন সেলিম মাহমুদ (৫২) ও নাজিম মাহমুদ (৪৭)।

জানা যায়, রাতে পৌনে ২টার দিকে ঘরের ভেতরে আগুন দেখে চিৎকার দেন সেলিম মাহমুদ। ঘর থেকে বেরোনোর চেষ্টা করতে গিয়ে দেখেন দরজা বাইরে থেকে আটকানো রয়েছে। তিনি আগুন থেকে বাঁচতে কম্বল, লেপ ও তোষক আগুনের উপর দিয়ে কয়েকবারের চেষ্টয়া দরজা খুলে বেরিয়ে আসেন। তাদের আত্ম চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে পরিবারের সদস্যদের উদ্ধার করেন এবং আগুন নিয়ন্ত্রণ করেন।

বিয়ানীবাজার থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ লিটার পেট্টোল ভর্তি একটি প্লাস্টিকের বোতল এবং আরেকটি খালি বোতল উদ্ধার করে। এ সময় ঘরের দরজায় আটকানো ৬টি নতুন তালা পুলিশ আলামত হিসাবে জব্দ করে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ঘরের পাশাপাশি দুইটি দরজা আগুনে জ¦লসে গেছে। বাইরে ছড়িয়ে রয়েছে আগুনে পুড়ে যাওয়া কম্বল, লেপ ও তোষকসহ ব্যবহৃত জিনিষপত্র। পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশিদের মধ্যে একধরনের আতংক বিরাজ করছে। এ বড় ঘটনায় তারা হতবিহ্বল। আগুন থেকে কিভাবে বাঁচতে পারলেন একথা মনে হলে এখনো আঁতকে উঠেন সেলিম মাহমুদ। তিনি বলেন, তিন মাস আগে আমার ভাই (বিলাল আহমদ) নিজ ইচ্ছায় আলাদা হয়ে যান। গত এক মাস থেকে পারিবারিক সম্পত্তি ভাগ করার জন্য বললে আমরাও রাজি হই। বাড়ির মুরব্বি সাবেক মেম্বার আব্দুর রুফ চুনু একজন সার্ভেয়ার দিয়ে জায়গা জমি ভাগ করে দেবেন বলেন জানান। কিন্তু মুরব্বির কথা সন্তোষ্ট হতে না পেয়ে আমার ভাই (বিলাল) ছেলে জুবায়েরকে দিয়ে আমাদের পুড়িয়ে মারার পরিকল্পনা করে সমস্ত সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা করেন। আল্লাহ আমাদের রক্ষা করেছেন। আগুনে সেলিম আহমদের বাম পা আগুনে পুড়ে গেছে।

জুবায়েরের চাচাতো ভাই তামিম আহমদ বলেন, বেশ কিছু দিন থেকে আমাদের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারার ভয় দেখাতেন জুবায়ের ভাই। বিষয়টি আমরা গুরুত্ব দেইনি। অথচ সত্যিই সে আগুন দিয়ে আমাদের মারার চেষ্টা করলো।

আগুনে আহত নাজিম মাহমুদ বলেন, জুবায়ের মাদ্রাসায় পড়াশোনা করেছে। এখন কি করে আমরা জানি না। বছরের অর্ধেক সময় বাড়ির বাইরের থাকে। তিনি বলেন, রাত ২টার দিকে ভাইয়ের (সেলিম মাহমুদ) চিৎকারে ঘুম থেকে উঠে দেখি ঘরের ভেতর আগুন। বউ-বাচ্চাদের নিয়ে অনেক চেষ্টায় এবং প্রতিবেশিদের সহায়তায় বেরিয়ে আসি।

নাশকতার এ ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করবেন বলে জানান সেলিম মাহমুদ। বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, পারিবারিক বিরোধ থেকে আগুন লাগানো হতে পারে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ পেট্টোল, বেশ কয়েকটি তালা উদ্ধার করেছে, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। আমাদের মনে হয়েছে এটি পরিকল্পিত নাশকতা। তিনি বলেন, থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

শামীমের ফেইসবুক স্ট্যাটাস নির্বাচনের নামে প্রহসনের রাজনীতি বন্ধ করুন

সিলেটে বেড়াতে এসে ট্রাক চাপায় সেনা কর্মকর্তার স্ত্রী-ছেলে নিহত

আতাউর রহমান খান'র বাড়িতে আবুল কাশেম পল্লব!

মুড়িয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রব এর ইন্তেকাল।। বিভিন্ন মহলের শোক

বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাচন- জামানত বাজেয়াপ্ত হলো যাদের

ফলাফল ঘোষণা শেষে দক্ষিণ বিয়ানীবাজারে হাজারো মানুষের বিজয় উল্লাস

ঘোষণাঃ