২০শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং | ৮ই মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজার পৌরশহরের প্রধান সড়কে ফের বসেছে অস্থায়ী সবজি বাজার!

https://i1.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/01/fer-sobji-bazar.jpg?resize=1200%2C630

বিয়ানীবাজার পৌরশহরের প্রধান সড়ক ও ফুটপাত ফের অস্থায়ী সবজি ব্যবসায়ীদের দখলে চলে গেছে। পৌরসভা কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযানের ৩ মাসের মাথায় সাধারণ মানুষের হাঁটার জায়গা ও সড়কজুড়ে শীতকালীন সবজির পসরা সাজিয়ে বসেছে ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে, এ সড়কটি থেকে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ৩ বছরের জঞ্জাল সরিয়ে দেয়ার পরও পুনরায় অস্থায়ী সবজি বাজার বসায় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

জানা যায়, পৌরসভাকে একটি পরিচ্ছন্ন শহর গড়তে পৌর মেয়র ও তার পরিষদ পরিচ্ছন্নতা কর্মী নিয়োগ, ডাস্টবিন সরবরাহ করলেও তাদের গলাকাঁটা ছিল অস্থায়ী সবজি ও মাছ বাজার। এর কারণেই শহরটি ময়লা ও দুর্গন্ধের জন্য দেশের মধ্যে অপরিচ্ছন্ন পৌরশহরে পরিণত হয়ে যায়। পরে এক জরুরী সভায় নেয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পৌরশহরের সবকটি সড়কের ফুটপাতে অবৈধ দখলদারদের সরে যাওয়ার জন্য সময়সীমা বেঁধে দিয়ে মাইকিং করে বিয়ানীবাজার পৌরসভা। অবশেষে গত ৬ অক্টোবর অস্থায়ী সবজি ও মাছ বাজার উচ্ছেদের মাধ্যমে পৌরশহর ও শহরতলীর সবকটি সড়কের ফুটপাতে অবৈধ দখলমুক্তসহ সবধরনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান শুরু করে পৌরসভা। এর আগে নবনির্মিত পৌর কিচেন মার্কেটে মৎস্য ও সবজি ব্যবসায়ীদের জন্য ভিটা নির্দিষ্ট করে দিলেও মৎস্য ব্যবসায়ী সেখানে যেতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে ১লা অক্টোবর সবজি ব্যবসায়ীদের মধ্যে পৌর কিচেন মার্কেটে ভিটা বরাদ্ধ করে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। ভিটা বরাদ্ধের পর দুই সপ্তাহের মধ্যেই প্রধান সড়ক ঘেষে গড়ে ওঠা অস্থায়ী বাজার ছেড়ে পৌর কিচেন মার্কেটে স্থানান্তরিত হন সবজি ব্যবসায়ীরা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, পৌরশহরের প্রধান সড়ক ও কলেজ রোডের কিছু অংশে গত ১ মাস ধরে আবারও গড়ে উঠেছে অস্থায়ী সবজির বাজার। প্রথমদিকে এখানে মৌসুমী খুচরা সবজি ব্যবসায়ী বসলেও সম্প্রতি পৌর কিচেন মার্কেটের সবজি ব্যবসায়ীরাও নেমে এসেছেন সেখানে। পৌরশহরের প্রধান এ সড়ক ও ফুটপাত দখল করে পুনরায় সবজি বাজার গড়ে উঠায় যেখানে-সেখানে জমছে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ। এছাড়াও ব্যস্ততম এ সড়কে ঘন ঘন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। এদিকে, পৌরসভা কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান এখনো অব্যাহত থাকলেও পুনরায় অস্থায়ী সবজি উচ্ছেদে কোন কার্যকরি প্রদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সবজি ব্যবসায়ী জানান, কিচেন মার্কেটে প্রতিদিনই হাতেগোনা মাত্র কয়েকজন ক্রেতার দেখা মিলে। আর দ্বিতীয় তলায় হওয়ায় সবজি কিনতে ক্রেতারা সেখানে উঠতে চান না। বাধ্য হয়ে ক্রেতার আশায় সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নির্ধারিত স্থানে সবজি নিয়ে বসে থাকতে হয়। আর ব্যবসা যদি না হয় তাহলে তো আমাদের পরিবার-পরিজন না খেয়ে থাকবে, তাদেরকে নিয়ে পথে বসতে হবে। এজন্য আমরা বাধ্য হয়ে ফের সড়কে নেমে এসেছি।

আব্দুল কাইয়ুম নামের একজন বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, কিচেন মার্কেট ছেড়ে সবজি ব্যবসায়ীরা পুনরায় পৌরশহরের প্রধান সড়কে নেমে আসায় সড়কের আকার ছোট হয়ে যাচ্ছে এবং যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনার জঞ্জাল-স্তূপ জমে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। সড়কটি দেখে বুঝার উপায় নেই যে এটি আদতেই সড়ক নাকি ব্যবসাকেন্দ্র। আমার ধারণা, সবজি ব্যবসায়ীরা কিচেন মার্কেট ছাড়ার একমাত্র কারন হচ্ছে ক্রেতা সংকট। এজন্য অতি দ্রুত মাছ ও সবজি ব্যবসায়ী এবং পৌরসভা কর্তৃপক্ষ বসে একটা সমাধানে আসা ছাড়া অন্য বিকল্প নেই।

এ ব্যাপারে বিয়ানীবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছায়ফুল আলম ঝুনু বলেন, পৌরসভার মেয়র মোঃ আব্দুস শুকুর পারিবারিক কারণে বর্তমানে সংক্ষিপ্ত সফরে যুক্তরাজ্যে অবস্থান করছেন। তিনি দেশে আসার পর আমরা পুরো পরিষদ বসে এ বিষয়ে করণীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবো।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

এবি মিডিয়া গ্রুপের সিইও-বিয়ানীবাজার নিউজ২৪’র প্রকাশক রিজু মোহাম্মদ কাল দেশে আসছেন

ভূমিমন্ত্রীর একান্ত সচিব হলেন গোলাপগঞ্জের সন্তান হাফিজুর রহমান

বিয়ানীবাজারে লাউঝারী সমাজ কল্যাণ কেন্দ্র'র উদ্যোগে প্রবাসী সংবর্ধনা ও বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান সম্পন্ন

বিয়ানীবাজার সমাজ কল্যাণ সমিতি ফ্রান্স'র উদ্যোগে আলিম ও হান্নানকে আর্থিক অনুদান প্রদান

সিলেটে আলোচনায় তিন চৌধুরী।। সুবিধাবাদীরা মুহিত ছেড়ে মোমেনের পাশে

অবশেষে বিমানবন্দরে বিদায় বেলা সকলকেই কাছে পেলেন মুহিত!

ঘোষণাঃ