১৫ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারের বালিঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে এসএসসি’র অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

https://i0.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2018/11/balinga.jpg?resize=1200%2C630

বিয়ানীবাজার উপজেলার বালিঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি ও কোচিংয়ের নামে ফি আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয়ের নির্বাচনী পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর থেকেই কৃতকার্য ৭৩জন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে কৌশলে জনপ্রতি ২ হাজার টাকারও অধিক টাকা করে আদায় করছে কর্তৃপক্ষ।

অতিরিক্ত ফি ও কোচিং বাণিজ্যের অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করে বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোঃ দলিল উদ্দিন বলেন, এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। সেশন ফি ও মাসিক বেতন নেয়ায় ফি একটু বেশি দেখাচ্ছে। আমরা বোর্ড নির্ধারিত ফি ছাড়া পরিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বাড়তি কোন টাকা নিচ্ছি না। তিনি আরোও জানান, তাঁর বিদ্যালয় থেকে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার জন্য ৯৮জন শিক্ষার্থী নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। সেখান থেকে ৭৩জন শিক্ষার্থীকে কৃতকার্য ঘোষনা করা হয়েছে।

জানা যায়, বিদ্যালয়ের এবারের এসএসসি পরীক্ষার ফি’সহ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মানবিক বিভাগে জনপ্রতি ৩৭’শ ৫০’ টাকা এবং বিজ্ঞান বিভাগে জনপ্রতি ৩৮শ’ টাকা করে নেয়া হচ্ছে। চলতি মাসের ১২ নভেম্বরের মধ্যে এ টাকা জমা দেয়ার জন্যও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের নির্দেশ দিয়েছ। এদিকে, সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১৫৬৫ টাকা ও মানবিক বিভাগে ১৪৪৫ টাকা ফি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। কিন্তু বোর্ড নির্ধারিত ফিসহ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বিভিন্ন খাত দেখিয়ে অতিরিক্ত ফি আদায় করছেন বিদ্যালয়ের দায়িত্বশীলরা।

সচেতন অভিভাবকদের মতে, এসএসসি পরীক্ষার রেজিষ্ট্রেশন ফি’র নামে বিদ্যালয়ের ৭৩ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা আদায় অমানবিক – যা শিক্ষকতা্র মতো মহান পেশার নৈতিকতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করবে।

বিদ্যালয়য়ের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবক শাহজাহান খান এ ধরনের অমানবিক ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, নির্বাচনী পরিক্ষার ফলাফল প্রকাশের পরপরই বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের কাছে রেজিস্ট্রেশন বাবত বোর্ড নির্ধারিত ফি’র চেয়ে দুই হাজারেও বেশি টাকা দাবি করে বসেছে। যা দরিদ্র ও মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য পরিশোধ করা খুবই দুরূহ ও কঠিন হয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান বলেন, কোচিং বানিজ্যের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। এ বিষেয় সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে উপজেলা প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে।

সিলেট শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়স্ত্রক কবির আহমদ বলেন, কোচিং ফি বা অতিরিক্ত ফি নেয়ার কোন সুযোগ নেই। বিষয়টি আমি দেখছি। তিনি বলেন, ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বেতন নেয়ার সুযোগ থাকলেও সেশন ফি নেয়ার কোন সুযোগ নেই। এটা তারা কেন করছে আমি দেখতেছি। তিনি আরও বলেন, এসএসসি পরীক্ষার আগে এরকম অভিযোগ প্রতি বছরই আমরা পাই। বিদ্যালয়য়ের দায়িত্বশীলদের এ বিষয়েে আররোও দায়িত্বশীল ও সহণীয় হতে হবে।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

জকিগঞ্জের সন্তান ডা. মোর্শেদ সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য

কোয়াব বিয়ানীবাজার ক্রিকেট একাডেমীর উদ্বোধন অনুষ্ঠান শুক্রবার

সিলেট-০৬ আসন।। কে পাচ্ছেন বিএনপি'র ধানের শীষ

পিএসএলে খেলবেন সিলেটের জাকির!

বিয়ানীবাজারে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষ্যে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আগামী রবিবার

ফিরে দেখা- সংসদ নির্বাচন ২০০৮।। সিলেটের ৬টি আসনের নির্বাচনী অবস্থা

ঘোষণাঃ