২৩শে মার্চ, ২০১৯ ইং | ৯ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বড়লেখায় ধর্মঘটে আটকে নিহত শিশুর বাবার আহাজারি- ‘আমার কান্না কেউ শুনলো না’

https://i1.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2018/10/follow-up.jpg?resize=1200%2C630

মৃত শিশুটির বাবা বড়লেখা সদর ইউনিয়নের অজমির গ্রামের কুটন মিয়া আহাজারি করে বলেন, ‘গতকাল অনেক চেষ্টা করেও কাউকে বুঝাতে পারলাম না। বড় কষ্ট পেয়েছি। গতকালের সময়টি মনে পড়লে মনে হয়- আমার কান্না কেউ শুনলো না। আমি সেই সময় অসহায় ছিলাম, নিরুপায় ছিলাম।’

মাত্র সাতদিন আগে সন্তানের জন্ম হয়েছিল উল্লেখ করে তিনি জানান, এখনো তার নাম রাখা হয়নি। ‘অথচ তার মৃত্যু দেখতে হলো তা ভাবতে কষ্ট হয়’- বলেই কাঁদতে শুরু করেন তিনি। এ ঘটনায় কোনো মামলা করা হবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘এখন আর মামলা করে কি হবে? সন্তানকে তো আর ফিরে পাবো না?’

নিহত শিশুর পরিবার থেকে জানা যায়, গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে বড়লেখায় পরিবহন শ্রমিকদের প্রতিরোধে উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নের চান্দগ্রাম এলাকায় আটকে পড়া অ্যাম্বুলেন্সে মারা যায় শিশুটি।

তারা জানান, বড়লেখা উপজেলার সদর ইউনিয়নের অজমির গ্রামের কুটন মিয়ার সাতদিনের শিশুকন্যাকে অসুস্থ অবস্থায় ২৮ অক্টোবর সকালে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

হাসপাতালের চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য শিশুটিকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বললে অভিভাবকরা অ্যাম্বুলেন্সে করে সকাল ১০টার দিকে শিশুটিকে নিয়ে সিলেটের উদ্দেশ্যে রওনা হন। যাওয়ার পথে বড়লেখা উপজেলার পুরাতন বড়লেখা বাজার, দাসের বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে অ্যাম্বুলেন্সটি পরিবহন শ্রমিকদের বাধার মুখে পড়ে।

মৃত শিশুর চাচা আকবর আলী ওরফে ফুলু মিয়া জানান, প্রথমে দাসেরবাজারে গাড়ি আটকে চালককে মারধর করা হয়। পরে অনুরোধ করলে গাড়ি ছাড়ে। চান্দগ্রামে আবার গাড়ি আটকে গাড়ির চাবি নিয়ে যায়। এছাড়াও, ৫০০ টাকা দাবি করে। প্রায় দেড় ঘণ্টা সেখানে অ্যাম্বুলেন্সটি আটকে রাখে শ্রমিকেরা। দুপুর দেড়টার দিকে গাড়ি ছাড়া পেলে শিশুটিকে পাশের বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ইয়াছিন আলী বিকেল সাড়ে ৪টায় বলেন, ‘আমরা শিশুর পরিবারের সাথে যোগাযোগ করেছি। বাড়িতে গিয়েছি। কিন্তু তাদের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

উল্লেখ্য, সড়ক পরিবহন আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনসহ ৮ দফা দাবিতে গতকাল (২৮ অক্টোবর) সারাদেশে ডাকা ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘটে অ্যাম্বুলেন্স, ওষুধের গাড়ি, বিদেশ যাত্রী, পরীক্ষার্থীদের যানবাহনসহ কোনো প্রকারের গাড়িকে ছাড় দেননি পরিবহন শ্রমিকরা। আর তারই বলি হতে হয় বড়লেখার সাতদিন বয়সী এক কন্যাশিশুকে।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

এবি মিডিয়া গ্রুপের এমডি ফখরুল ইসলাম দেলোয়ারের ফুফু’র ইন্তেকাল ।। বিভিন্ন মহলের শোক

অবশেষে পুলিশের খাঁচায় গোলাপগঞ্জের ডাকাত সর্দার হাত কাটা হাসমত

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের সোনালী উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী নির্বাচিত

গোলাপগঞ্জে যুবকের গলাকাটা বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

নিউজিল্যান্ডে ভাইয়ের পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত গোলাপগঞ্জের পারভীন

সিলেটে বাউল সংগঠনের বৈশাখী উৎসবের প্রস্তুতি সভা

ঘোষণাঃ