১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিনে বেড়া দিয়ে বিদ্যালয়ের মাঠ দখল

https://i0.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2018/10/scl-dokhol.jpg?resize=1200%2C630

গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের মুকিতলা কৈলাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সহসভাপতি এনাম উদ্দিন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় মুকিতলা গ্রামের আবু তালিবের ছেলে মুহিবুর রহমান, মেয়ে রায়না বেগম, শাহনাজ বেগম, শেফা বেগম, পারভিন বেগম, মকবুল হোসেনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ করেছেন।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি একেএম ফজলুল হক শিবলী বলেন, বিষয়টি তাদের পারিবারিক। দীর্ঘদিন ধরে দুই ভাইয়ের মধ্যে জমি সংক্রান্ত পারিবারিক দ্বন্দ্বের ফলে এ ঘটনার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিনকে নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

রাজীব নামে এক ব্যক্তি জানান, ২০০০ সালে মুকিতলা গ্রামের আলতাব আলী তার ছোট ভাই আবু তালেবের কাছ থেকে ভূমি ক্রয় করে মুকিতলা কৈলাশ নামে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপন করেন। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে গ্রামের সাধারণ শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় সবার কাছে তিনি একজন শিক্ষানুরাগী হিসেবে বেশ পরিচিতিও লাভ করেন। তিনি ২০০২ সালের ৩ জানুয়ারি ৩৩ শতক ভূমি বিদ্যালয়ের নামে রেজিস্ট্রি করে দেন। যার ফলে ২০১৩ সালে বিদ্যালয়টি জাতীয়করণের স্বীকৃতি লাভ করে। বিদ্যালয়টি জাতীয়করণের স্বীকৃতি লাভ করলে তিনি এ বিষয়ে উদ্বুদ্ধ হয়ে ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি আরও ২০ শতক ভূমি বিদ্যালয়ের নামে রেজিস্ট্রি করে দেন। বর্তমানে বিদ্যালয়ে মোট ১৩৮ জন শিক্ষার্থী পাঠগ্রহণ করছে। চলতি বছরের ১৪ অক্টোবর মুহিবুর রহমান গং আকস্মিক বাঁশের বেড়া দিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান রাস্তা বন্ধ করে দিলে শিক্ষার্থীসহ শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া দুঃসাধ্য হয়ে পড়ে।

বিদ্যালয়ের ভূমিদাতা ও মুকিতলা কৈলাশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আলতাব আলী বলেন, এলাকার শিশু-কিশোরদের আলোকিত জীবন গড়ার লক্ষ্যে সরকারের নামে ভূমি দান করেছি। আমার ছোট ভাইয়ের ছেলে মুহিবুর রহমান আমার কাছ থেকে টাকা আদায় করতে এবং আমাকে সমাজে হেয় করতে সরকারি ভূমিতে বাঁশের বেড়া দিয়ে নিন্দনীয় কাজ করেছে। এটি এখন সরকারি প্রতিষ্ঠান। এখন সরকারই তার প্রতিষ্ঠানের জায়গা উদ্ধার করবে।

ভূমি দখলদার আবু তালিবের ছেলে মুহিবুর রহমান জানান, এখানে আমার বাবার হক রয়েছে। আমার বাবাকে বঞ্চিত করে চাচা শুধু উনার নামে জায়গার কাগজ (রেজিস্ট্রি) করেন। আমরা তখন ছোট ছিলাম, পরে বিষয়টি জানতে পেরে চাচা আলতাব আলীর কাছে জায়গার দাবি জানাই। তাতে তিনি অসম্মতি জ্ঞাপন করলে বাধ্য হয়ে জায়গায় বেড়া দিই।

ইউএনও মামুনুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপ করলে বিস্তারিত জানতে পারবেন। তবে বিষয়টির শান্তিপূর্ণ সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আব্দুল হামিদ সরকার বলেন, দুই ভাইয়ের মধ্যে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে আবু তালিবের ছেলে মুহিব বিদ্যালয়ের সীমানায় বেড়া দিয়ে বেআইনি কাজ করেছে। আমরা এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেব।

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

বিয়ানীবাজারে নৌকা প্রতীকের বিরামহীন প্রচারণায় নাহিদ

জকিগঞ্জে ১২ দিন ধরে নিখোঁজ বৃদ্ধ, অবশেষে হাওর থেকে লাশ উদ্ধার

বিয়ানীবাজারে ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার- নিন্দা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবি ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী ফয়সল'র

বিয়ানীবাজারের সারপার বাজারে নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী কার্যালয় উদ্বোধন

বিয়ানীবাজার মুক্তিযোদ্ধা ড. খসরুজ্জামান চৌধুরী পাঠাগার উদ্বোধন কাল

জকিগঞ্জে ফুলতলী'র কবর জিয়ারতের মাধ্যমে গনসংযোগ শুরু করলেন জাপা'র প্রার্থী সেলিম

ঘোষণাঃ