২০শে মে, ২০১৯ ইং | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারে সড়ক নির্মাণে বালুর বদলে পলি মাটি- অনিয়মের অভিযোগ এলাকাবাসীর

https://i1.wp.com/beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2018/06/beanibazar-road-03-06.jpg?resize=720%2C395

বিয়ানীবাজার লাউতা ইউনিয়নের দক্ষিণ পাহাড়িয়াবহর গ্রামের অভ্যন্তরিন রাস্তার পাকা করনের কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সড়ক নির্মাণে বালুর পরিবর্তে পাশের নদীর পাড় ও কৃষি জমি থেকে কেটে পলি মাটি তুলে সড়কে ব্যবহার করছে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। উপজেলা প্রকৌশল অফিসের দায়িত্বশীলদের ‘ম্যানেজ’ করে সড়ক নির্মাণ হচ্ছে বলে ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর অভিযোগ।

সড়ক নির্মাণে অনিয়ম, নিম্নমানের নির্মাণ ও বিটুমিন ব্যবহারের অভিযোগ তুলে লাউতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছেন স্থানীরা। সড়ক নির্মাণে অনিয়ম বন্ধ করতে এলাকাবাসী দাবি ও প্রতিবাদে তোয়াক্কা না করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রাদীফ এন্টারপ্রাইজ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষামন্ত্রীর নুরুল ইসলাম নাহিদের বিশেষ বরাদ্ধের ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলার লাউতা ইউনিয়নের অনগ্রসর দক্ষিণ পাড়িয়াবহর-নাওয়ালা সড়কের ২কিলোমিটার পাকা রাস্তা নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। রাস্তা নির্মাণ কাজের মান নিয়ে স্থানীয়দের মুখে মুখে প্রশ্ন উঠলে এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ২ কিলোমিটারের মধ্যে ২ কিলোমিটার রাস্তাায় বালির বদলে নদীর পাড় থেকে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে মাটি খনন করে এই মাঠি দিয়ে রাস্তা ভরাট করা হচ্ছে। এছাড়াও নিম্ন মানের ইট ভেঙ্গে মিশ্রণ করে নতুন রাস্তায় বিছানো হয়েছে। রাস্তার কাজে অনিয়মের অভিযোগ তুলে স্থানীয়রা প্রতিবাদ করলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন কাজ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি ধামকি দিয়ে আসছেন বলে অভিযোগ তাদের। এলাকাবসী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে কাজে শিডিউল দেখতে চাইলে তা তারা দেখাতে পারেনি।

এলাকার মুরব্বী আব্দুল বারি বলেন, রাস্তার পুরো কাজ করা হচ্ছে রাস্তার পাশের নদীর চর ও কৃষি জমির মাটি দিয়ে, একফুট বালু কোথাও দেয়া হয়নি। জীবনে এমন কাজ আমি দেখিনী। তিনি বলেন, আমরা অশিক্ষিত মানুষ কিচ্ছু জানতে চাইলেও বলে না। বরং কাজ ফেলে চলে যাবার ও মামলার হুমকি দেয় সাইট ম্যানেজার।

স্থানীয় গুচ্চ গ্রামের বাসিন্ধা রুহুল আমিন বলেন, আমরা নিরাশ্রয় মানুষ। সরকার আমাদের এখানে ঠাঁই দিয়েছে। এখন ঘরের পাশ থেকে মিশিন দিয়ে মাঠি তুলে নেওয়া হচ্ছো দুদিন পরেই আমাদের বসত ঘর নদীতে চলে যাবে।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রাদীফ এন্টারপ্রইজের স্বাধীকারী অওয়ামীলীগ নেতা এমাদ উদ্দিনের ব্যক্তিগত মুঠোফোনে যোগযোগ করলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে সাইট ম্যানেজার নিরঞ্জন চলে যান। তাকে থামিয়ে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি আসছে বলে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন।

উপজেলা প্রকৌশলী রামেন্দ্র হোস চৌধুরী বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। আমরা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে পুরো রাস্তার মাটি তুলে বালু দিয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছি।

 

 

A+ A-
Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ সংবাদ

বিয়ানীবাজারে ঝড়ে বিদ্যুতের খুঁটি লন্ডভন্ড।। ভোক্তভোগী গ্রাহকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ

বুধবারী বাজার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী রফিক উদ্দিনের ইন্তেকাল

রোটার‍্যাক্ট ক্লাব অব বিয়ানীবাজার'র নগদ অর্থ বিতরণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

কুলাউড়া-শাহাবাজপুর রেলওয়ের নির্মাণকাজে ধীর গতি- ভারতীয় হাইকমিশনারের অসন্তেুাষ প্রকাশ

বিয়ানীবাজারে র‍্যাবের অভিযানে আটক-২

নালবহরে ক্বিরাত ও হামদ-নাত প্রতিযোগিতার প্রাথমিক পর্ব সমাপ্ত

ঘোষণাঃ